Notunshokal.com
জাতীয়

কালবৈশাখীর তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড সারাদেশ, নিহত ৬

আজ সকালে রাজধানীসহ সারাদেশের আকাশ হঠাৎ করে রাতের ঘোর অমানিশা। আকাশের দশদিগন্তে শুধুই মেঘের গর্জন, বিদ্যুতের ঝলকানি। শুক্রবার বিকেলের পর থেকে আজ শনিবার সকালও শুরু হয়েছে কালবৈশাখীর তাণ্ডব লীলা। সকালে মেঘের গর্জন, বিদ্যুতের ঝলকানি, বাতাসের তীব্রতার সঙ্গে ঝড়ো হাওয়া এবং বজ্রবৃষ্টিতে নাকাল হতে হয় নগবাসীকে।

দেশের বিভিন্ন স্থানে ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ছয়জন মারা গেছেন। এছাড়া ঘরবাড়ি ও ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কোনো কোনো স্থানে শিলাবৃষ্টি এতটাই ভয়াবহ ছিল যে, অনেক ঘরের চাল ফুটো হয়ে গেছে। এত বড় শিলা সাম্প্রতিকালে হয়নি বলে দাবি করছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

সকালের রাস্তায় যে একটি-দু’টি যানবাহন বের হয়েছে, মেঘের অন্ধকারে হেডলাইট জ্বালিয়ে চলতে দেখা যায় সেগুলোকে। সড়কে তৈরি হয়েছে যেন রাতের আবহ। বাতাসে গাছের ডালপালা ভেঙে পড়েছে অনেক স্থানে। কোথাও কোথাও উড়ে গেছে বড় বড় ব্যানার-প্লাকার্ড।

রাজধানী ঢাকায় দমকা হাওয়ার সঙ্গে ধূলিঝড়ে দুর্ভোগে পড়েন পথচারীরা। বৃষ্টির সঙ্গে ঝড়ো হাওয়ায় গাছের ডালপালা ভেঙে পড়ে রাস্তায়। হঠাৎ হাওয়ায় ফুটপাতের অনেক দোকানের পলিথিন লণ্ডভণ্ড করে উড়িয়ে নিয়ে যায়। পথচারীরা দোকানের ছাউনি, অফিস বা রাস্তার পাশের বিল্ডিংয়ের বারান্দায় আশ্রয় নেন।

গতকালের রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় কালবৈশাখীর হানায় বৈদ্যুতিক তারে ঝড়িয়ে এবং শিলাবৃষ্টিতে কমপক্ষে ছয়জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। কোনো কোনো স্থানে শিলাবৃষ্টি এতটাই ভয়াবহ ছিল যে, অনেক ঘরের চাল ফুটো হয়ে গেছে। এত বড় শিলা সাম্প্রতিকালে হয়নি বলে দাবি করছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

শিলার আঘাতে মারা গেছেন দিনাজপুর পার্বতীপুরের সৈয়দ আলী (৫৫), মাগুরা সদর উপজেলার আকরাম হোসেন (৩৫) নামে দুই কৃষক, পাবনার ঈশ্বরদীতে জমেলা খাতুন (৫৫), সিলেটের ওসমানীনগরে সাবিয়া বেগম (৩০) এবং হাসান আহমদ নামে দেড় বছরের এক শিশু, যশোরের অভয়নগর উপজেলায় লাইজু খাতুন নামে এক কলেজছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে

আরও পড়ুন

হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচলেন ফরিদুর রেজা সাগর-ব্রাউনিয়া

Sheikh Anik

হঠাৎ কেঁপে উঠলো রাজধানীসহ গোটা দেশ

Syed Hasibul

স্বাধীনতার ৪৭ বছর পরেও ঢাকার রাস্তায় ইমার্জেন্সি লেন কেউ কল্পনাও করতে পারেনি

Syed Hasibul