খেলাধুলা

বিশ্বাস হচ্ছে না! আমার গানে সাকিব আল হাসান বাজনা বাজাইতেছে : অারমান অালিফ

সোশ্যাল মিডিয়াতে আজ একটি গান নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হচ্ছে। নেত্রকোনা জেলার এক অখ্যাত মুখ আরমান আলিফ নামের এক ইন্টারমিডিয়েট পড়ুয়া তরুণের গান অপরাধী গতকাল আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে বৃষ্টির সময় এই গানটি গেয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা।

কেউ হাতে ব্যাট। স্টাম্প। যাদের হাতে কিছু নেই তারা বসে আছেন কাঠের বেঞ্চিতে। কিন্তু কেউ স্থির নন। উত্তেজিত সবাই। যে যার মতো করে হাতের কাছে যা পাচ্ছেন আপন মনে করে মিউজিক ইনস্ট্রুমেন্ট বানিয়ে গাইছেন ‘তোরে স্কুল পলাই একটা নজর দেখিতে যাইতাম/ আমি টিফিনের সব টাকা জমাই আবেগ কিনিতাম/ ওরে রাইতের পর রাইত জাগিয়া গান লিখিতাম/আমার সেই গান এর ই সুরে তোরে খুঁজিয়া লইতাম’!

যারা গাইছেন তারা বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটার। ট্রায়াল রুমে দলবদ্ধ সবাই গাইছেন গানটি। ছোট্ট অংশের জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের গাওয়া এই অংশটুকুও সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল। ভিডিও ক্লিপে দেখা যায় সাকিব আল হাসান, রুবেল, সৌম্য সরকার, সাব্বিরসহ অনেককেই!

নিজের জীবন থেকে নেয়া ‘অপরাধী’ নামের গানটি নিয়ে আরো বিস্মিত হওয়ার মতো খবর হলো, ইউটিউবে ভিউয়ার্স-এর দিক থেকে বাংলা গানের জগতে ইতিহাস করে ফেলেছে গানটি। ইউটিউব গ্লোবাল র‌্যাঙ্কিংয়ে সেরা ১০০ গানের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছে আলিফের ‘অপরাধী’। গানটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ঈগল মিউজিক।

তারা জানায়, গ্লোবাল রেঙ্কিংয়ে এখন গানটি শীর্ষ ৮০-এর মধ্যে স্থান করে নিয়েছে। তারা এই গানটি গতকাল গেছে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। যেটি আজ দুপুরে সর্বপ্রথম ফেসবুক এবং ইনস্টাগ্রাম এর প্রচার করেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

পরে এটি ছড়িয়ে পড়ে সারা ফেসবুক জুড়ে। আর পাখিদের এই গান শুনে গর্ভবত মনে করছেন আরমান আলিফ। প্রাইভেট বিশ্বাসই হচ্ছে না বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান বাজনা বাজছে তার গানে। চ্যানেল অাইকে এক সাক্ষাৎকারে আরমান আলিফ বলেন, “এটাতো বিরাট ব্যাপার…হ্যাঁ,

বিকালে দেখলাম বাংলাদেশ ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানসহ আরো আমাদের বেশকিছু ক্রিকেটার ট্রায়াল রুমে বসে আমার গানটা গাইছে। বিশ্বাস করবেন না, এমন দৃশ্য দেখে আমি নিজেকে খুব গর্বিত মনে করেছি। আমার গানে সাকিব আল হাসান বাজনা বাজাইতেছে, বিশ্বাস করা যায়! এটা দেখে খুব আনন্দ লাগছে। এখন পর্যন্ত ‘অপরাধী’ গান নিয়ে সবচেয়ে বড় পাওয়া আমার কাছে এই মুহূর্তটা।