খেলাধুলা

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০০০ রানের মাইলফলক

স্পোর্টস ডেস্কঃ প্রথম ম্যাচে ‘ডাক’ মারলেও দ্বিতীয় ম্যাচে ৭৪ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেছেন তামিম ইকবাল। ম্যাচসেরা এই ব্যাটসম্যান জানালেন, আগের ম্যাচের ভুল থেকে শিখেছেন তিনি। টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে নির্ভেজাল শূন্য। পরের ম্যাচে দ্যুতিময় ৭৪। শূন্য থেকে শিখরে (পড়ুন সেঞ্চুরি) উঠতে না পারলেও তামিম ইকবাল যে ভুল থেকে শিক্ষা নিয়েছেন তার প্রমাণ এ দুটি সংখ্যা—০ ও ৭৪। ৪৪ বলে ৭৪ রানের ইনিংসটি খেলে তামিম আউট হয়েছেন ১৬তম ওভারের শেষ বলে।

তার আগের ৫ বল থেকে নিয়েছেন ২২ রান। বোঝাই যাচ্ছিল, ধীরে ধীরে চড়ে বসতে শুরু করেছেন ক্যারিবীয় বোলারদের ওপর। শেষ পর্যন্ত খেলতে পারলে হয়তো সেঞ্চুরিটাও তুলে নিতে পারতেন। তা না পারলেও বাংলাদেশের ইনিংসের সুর-তাল-লয় বেঁধে দিয়েছে তামিমেরই ব্যাট। আগের ম্যাচের ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে তামিম নিজের ইনিংসটা টেনেছেন যত দূর সম্ভব। তাতে অবশ্য এ বছর একটি মাইলফলকও ছুঁয়ে ফেললেন তামিম।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০০০ রানের মাইলফলক। দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামার আগে এই মাইলফলক থেকে ৬৫ রান দূরে ছিলেন তামিম। ১৬তম ওভারের চতুর্থ বলে রাসেলকে চার মেরে টপকে যান ১০০০ রানের মাইলফলক। এ বছর চার টেস্টে তামিমের রানসংখ্যা ১৬৩। ১২ টি-টোয়েন্টিতে ৩০৭ আর ৮টি ওয়ানডে খেলে করেছেন ৫৩৯ রান। মাইলফলকের সঙ্গে জয়ের মুখও দেখায় চনমনে তামিম জানালেন, ‘চাপটা এখন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওপর। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে আমরা হয়তো সেভাবে খেলতে পারিনি কিন্তু ঘুরে দাঁড়ানোর ব্যাপারে সব সময় আত্মবিশ্বাসী ছিলাম।’