খেলাধুলা

সন্দেহ নেই, আশরাফুল অনেক মেধাবী ব্যাটসম্যান। দেশকে কিছু ম্যাচ সে একাই জিতিয়েছে।

আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরে ৫ বছরের সাজা থেকে মুক্তি পাচ্ছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। আজ রাত বারোটার পর থেকে সব ধরনের নিষেধাজ্ঞা উঠে যাচ্ছে মোহাম্মদ আশরাফুল এর উপর। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ম্যাচ পাতানোর অভিযোগে পাঁচ বছরের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন মোহাম্মদ আশরাফুল।

আর মোহাম্মদ আশরাফুলের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে যাচ্ছে আগামীকাল। তবে নিষেধাজ্ঞা কাটলো জাতীয় দলে ফেরা হচ্ছে না মোহাম্মদ আশরাফুলের। জাতীয় দলে ফেরা টা সহজ হবে না আশরাফুলের। জাতীয় দলে নিজের জায়গা করে নিতে হলে লড়াই করতে হবে এখনো অনেক।

এমনটাই বললেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান ও জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান। বাংলাদেশ জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ সাইট জাগো নিউজ এর এক সাক্ষাৎকারে আকরাম খান বলেন, ‘আশরাফুল ইস্যুতে ক্রিকেট বোর্ডের চিন্তা ভাবনা কি, বোর্ড তাকে নিয়ে আসলে কি ভাবছে, তা আমি এখনই বলতে পারব না। কারণ এটি বোর্ডের নীতি নির্ধারণী বিষয়।

ম্যাচ ফিক্সিংয়ের সঙ্গে যুক্ত কোনো ক্রিকেটারের ওপর থেকে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবার পর তাকে নেয়া বা না নেয়ার এখতিয়ার সংশ্লিষ্ট ক্রিকেট বোর্ডের। এটা অবশ্যই স্পর্শকাতর বিষয়। কাজেই আশরাফুল ইস্যুতে বোর্ডের অবস্থান কি, তা আসলে আমার জানা নেই।

এটা হয়তো আলোচনা সাপেক্ষে জানা যাবে এবং নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবার পর হয়তো সেই আলোচনাটা নিশ্চয়ই বোর্ডের নীতি নির্ধারণী মহলেই হবে। তখনই বিসিবির চিন্তা-ভাবনা ও মনোভাব পরিষ্কারভাবে জানা যাবে। তবে একজন ক্রিকেটার ও জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক হিসেবে আমি মনে করি, আশরাফুলের দরজা খোলা আছে বা থাকার কথা।’

আকরাম আরও বলেন, তুষার ইমরান যদি মধ্য তিরিশে গিয়েও ‘এ’ দলে ডাক পেতে পারে, তবে আশরাফুল কেন পাবে না? সে যদি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার মতো শারীরিক সক্ষমতা দেখাতে পারে এবং ঘরের ক্রিকেটে খুব ভালো পারফর্ম করে, তাহলে হয়তো তাকে বিবেচনায় আনা হতেও পারে। সন্দেহ নেই, আশরাফুল অনেক মেধাবী ব্যাটসম্যান।

দেশকে কিছু ম্যাচ সে একাই জিতিয়েছে। তার আন্তর্জাতিক অভিজ্ঞতা আছে, সে জানে কখন কি করতে হবে। যার প্রমাণও সে দিয়েছে। এর পাশাপাশি কিছু নেতিবাচক বিষয়ই আছে, সেটাতো সবারই জানা। এখন বিষয়টা অনেকটা আশরাফুলের ওপর। সে যদি ঘরোয়া ক্রিকেটে খুব বেশি ভালো খেলে, তাহলে তার কথা হয়তো টিম ম্যানেজমেন্ট ও নির্বাচকদের ভাবতে হবে। এ মুহূর্তে এর চেয়ে বেশি কিছু বলার অবস্থা নেই।’