খেলাধুলা

আশরাফুলকে আশার বাণী শুনালেন যিনি

স্পোর্টস ডেস্ক: পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে সোমবার থেকে সব ধরণের ক্রিকেটে আবারও অংশগ্রহণের ছাড়পত্র পাচ্ছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হওয়ায় জাতীয় দলে প্রত্যাবর্তনেরও সুযোগ থাকছে তার সামনে। । বিপিএল এর দ্বিতীয় আসরে ফিক্সিংয়ে জড়ানোর পর তিন বছরের স্থগিত নিষেধাজ্ঞাসহ মোট ৮ বছরের জন্য সব ধরণের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয় আশরাফুলকে।

এরপর তার আপিলে সাজা কমে আসে ২ বছরের স্থগিতসহ ৫ বছরে। তিন বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটানোর পর ২০১৬ সালের অগাস্টে ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরলেও স্থগিত নিষেধাজ্ঞার জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট এমনকি ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক প্রতিযোগিতাতেও অংশ নিতে পারেননি তিনি। অবশেষে আরও দুই বছরের সাজার পর আগামীকাল থেকে আবারও সব ধরণের ক্রিকেটে ফেরার ছাড়পত্র পাচ্ছেন তিনি।

নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষে আবারও জাতীয় দলে ফিরতে চান এমনকি ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপেও খেলতে চান বলে ইতোমধ্যে ভক্তদের জানিয়েছেন ৩৪ বছর বয়সী এ ক্রিকেটার। নিজের অভিন্ন লক্ষ্য পূরণে সবকিছু করে যেতে চান বলেও জানিয়েছেন তিনি। তবে এ মুহূর্তে জাতীয় দলে তার জায়গা দেখছেন না টাইগারদের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

আশরাফুলের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হওয়ার একদিন আগে সংবাদ মাধ্যমে এমনটাই জানিয়েছেন তিনি। ঠিক কি কারণে এমনটা ভাবছেন প্রধান নির্বাচক, দিয়েছেন তার উপযুক্ত ব্যাখ্যাও। সে অনেক ধরেই আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নেই। সুতরাং ঘরোয়া ক্রিকেটে সব ফরম্যাটে তাকে খেলতে হবে। ওর ফিটনেস আন্তর্জাতিক পর্যায়ের জন্য ঠিক আছে কিনা, সেটা দেখতে হবে। সাসপেসশন যাওয়ার পর সব ফরম্যাটে খেলুক, তারপর এক বছর যাওয়ার পর বুঝতে পারব তার ফিটনেস কোন লেভেলে আছে।

একই সাথে নান্নু তার জন্য আশার বাণীও শুনিয়েছেন তিনি। ফিটনেসে উন্নতি করতে পারার সাথে ধারাবাহিকভাবে পারফর্ম্যান্স ক্রে গেলে ফের জাতীয় দলে তাকে দেখা যাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে বলেও এসময় জানান তিনি।