খেলাধুলা

নান্নুর সেই মন্তব্য নিয়ে এবার যা বললেন আশরাফুল

স্পোর্টস ডেস্ক: ২০১৩ সালে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) আসরে স্পট ফিক্সিংয়ের দায়ে সবধরনের ক্রিকেট থেকে ৮ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। কিন্তু পরে তা কমিয়ে ৫ বছরে আনা হয়। তবে আজ ১৩ আগস্ট(সোমবার) সব ধরণের নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তি মিলেছে ইতিহাসের সর্বকনিষ্ঠ এই টেস্ট সেঞ্চুরিয়ানের।

আর এই নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় জাতীয় দলের হয়ে খেলতেও কোনো বাধা থাকবে না তার। কিন্তু প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু সাফ জানিয়ে দিয়েছেন এখনই জাতীয় দলে ফিরছেন না মোহাম্মদ আশরাফুল।

আশরাফুলকে নিয়ে তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে যদি বলতে হয় তাহলে বলব, দল এখন কোনো জায়গা নেই। আমাদের দলের সবার যে ফিটনেস লেভেল আছে, এইচপি থেকে শুরু করে ‘এ’ দল ও জাতীয় দলের ফিটনেসের সাথে কিন্তু সে অ্যাটাচড না। এই জায়গায় আসতে হলে তাকে কিছু সময় দিতে হবে। এই লেভেলটা যদি থাকে তাহলে চিন্তা করা যাবে। সুতরাং এই মুহূর্তে আমরা চিন্তা ভাবনা করছি না।’

তিনি আরো বলেন, ‘তাকে জাতীয় দলে ফিরতে হলে অবশ্যই ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফর্ম করেই ফিরতে হবে। এছাড়া ওর ফিটনেস আন্তর্জাতিক পর্যায়ের জন্য ঠিক আছে কি না, সেটা দেখতে হবে। আগে ঘরোয়া ক্রিকেটে সব ফরম্যাটে খেলুক, এক বছর যাওয়ার পর বুঝতে পারব তার ফিটনেস কোন লেভেলে আছে।’

আর নান্নুর এমন মন্তব্য নিয়ে আশরাফুলকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘নান্নু ভাইয়ের কথা শুনে মন খারাপ হয়নি। তিনি যা বলেছেন তা ঠিক আছে। নান্নু ভাই প্রধান নির্বাচক, তার অবস্থান থেকে অমন কথা শতভাগ সত্য এবং বাস্তব। আমি এখন টিম ম্যানেজমেন্ট, নির্বাচক ও বোর্ডের চিন্তায় নেই। থাকার কথাও নয়। সেটাই সব থেকে বড় সত্য। দীর্ঘ পাঁ বছর জাতীয় দলের বাইরে অবস্থান করছি। জাতীয় দলে প্রবেশ করতে হলে অনেক সময় লাগে। একেক ফরম্যাটে একেক রকম লাইন আপ রয়েছে। কোন দলে কারা থাকবে, কারা খেলবে, টিম কম্বিনেশন কেমন হবে। এগুলো মোটামুটি ঠিক করাই হয়ে গেছে। সেখানে নিষেধাজ্ঞা মুক্ত হয়েছি বলেই যে আমি হুট করে ঢুকে যাব, এমন নয়। আমি জানি আমাকে অনেক কাঠ-খড় পুড়িয়েই দলে ঢুকতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘নতুন করে আমাকে আবার শুরু করতে হবে। ফিটনেস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। পারফরমেন্সটাও হতে হবে ভালো। তারপর বিবেচনায় আসার প্রশ্ন। এখন হুট করে আমাকে নেয়া হবে, আমি তা স্বপ্নেও ভাবিনা। কাজেই আমার কানে যখন আসে, ‘আশরাফুল তো আমাদের চিন্তাভাবনাতেই নেই’ তখন মন খারাপ হয়না। দুঃখও লাগেনা।’

‘এগুলো নিয়ে চিন্তা করার প্রশ্নই আসে না। জাতীয় দলে ফেরার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাব। সেটাও একটা প্রক্রিয়ায় হবে। যা রাতারাতি সম্ভব নয়। এটা আমি ভালো করে জানি। আর তা আছে বলেই আমিও হিসেব কষে, ভেবে চিন্তে আগানোর কথা ভাবছি’- যোগ করেন আশরাফুল।