খেলাধুলা

২০১৯ বিশ্বকাপ খেলবেন আশরাফুল

স্পোর্টস ডেস্ক: সবধরণের ক্রিকেট থেকে মোহাম্মদ আশরাফুলের নিষেধাজ্ঞা উঠেগেছে আজ ১৩ই অগাস্ট। তাহলে ২০১৯ বিশ্বকাপ খেলবেন আশরাফুল! আর তাঁর জাতীয় দলের হয়ে খেলতে বাঁধা থাকছে না। গত সাড়ে পাঁচ বছর ধরে এই দিনটির অপেক্ষায় ছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। তবে নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলেও সাবেক এই টাইগার অধিনায়কের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা খুব সহজ নয়।

আর সেটা যে এখনই হচ্ছে না সেটি নিশ্চিত করেছেন জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু।

নান্নু জানান, ‘সে (আশরাফুল) অনেক ধরেই আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নেই। সুতরাং ঘরোয়া ক্রিকেটে সব ফরম্যাটে তাকে খেলতে হবে। ওর ফিটনেস আন্তর্জাতিক পর্যায়ের জন্য ঠিক আছে কিনা, সেটা দেখতে হবে। নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পর সব ফরম্যাটে খেলুক, তারপর এক বছর যাওয়ার পর বুঝতে পারব তার ফিটনেস কোন লেভেলে আছে। তাঁকে কোন ফরম্যাটের জন্য আমরা চিন্তা করব সেটা আমাদের দেখতে হবে। আমরা এখন তেমন কোন চিন্তা করছি না। তারপরও সামনে ঘরোয়া মৌসুমটা আমরা দেখব, তারপর চিন্তা করব।’

আশরাফুল ২০১৩ সালে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ম্যাচ পাতানো ও স্পট-ফিক্সিংয়ের সঙ্গে জড়িত থাকায় পাঁচ বছর নিষিদ্ধ হয়েছিলেন। আজ ১৩ আগস্ট শেষ হচ্ছে তার উপর থাকা সব ধরনের নিষেধাজ্ঞা।

সব ধরনের নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পর লন্ডন থেকে এক ভিডিও বার্তায় আশরাফুল জানিয়েছে, গত সাড়ে পাঁচ বছর ধরে এই দিনটির অপেক্ষায় ছিলাম। ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় ২০১৯ বিশ্বকাপে খেলতে চাই।

‘আর কেন সুযোগ পাবনা ? আরও ১১ মাস আছে। অক্টোবর থেকে আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটের মৌসুম শুরু। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে যদি ভালো খেলি, জানুয়ারিতে বিপিএলে ভালো খেলি, কেন সম্ভব নয়? সাকিব-তামিম-মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ বাদে ব্যাটসম্যানদের মধ্যে কার জায়গাটা পাকা? বাকিরাও ভালো। তবে তরুণদের কারও জায়গা পোক্ত নয়। ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো খেললে অবশ্যই সুযোগ থাকবে।’

যদিও জাতীয় দলে ফেরার পথে বয়সও আশরাফুলের জন্য একটি বড় বাধা। এখন তার বয়স ৩৪। তবে বয়স কোন বিষয় না। যদি ফিটনেস আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের মানের হয় তাহলে যে কোন প্লেয়ারই আসতে পারে। এমনটাই মনে করেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু।

তিনি জানান, যেহেতু অনেক বয়স হয়ে গেছে তার, তাই বয়সের ব্যাপার আছে। তারপরও আমি বলব সে আমাদের দেশের জন্য অনেক ভালো ক্রিকেট খেলেছে। তার তো অবশ্যই সামর্থ্য আছে। তবে আমরা এই মুহূর্তে কিছু বলতে পারছি না। এই মুহূর্তে যদি বলতে হয় তাহলে বলব, এই মুহূর্তে দলে কোন জায়গা নেই। তবে দেশের হয়ে খেলার সুযোগ পেতে হলে ফিটনেসের নিয়ে অনেক কাজ করতে হবে।

আশরাফুল এই মধ্যে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ২০১৭-১৮ মৌসুমে লিস্ট ‘এ’ ম্যাচে পাঁচটি সেঞ্চুরি পেয়েছেন। ঘরোয়া লিগে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে এক মৌসুমে দ্বিতীয় ব্যক্তি হিসেবে পাঁচ সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েন তিনি। তার আগে কেবল দক্ষিণ আফ্রিকার আলভারো পিটারসন এই রেকর্ড গড়েন। তবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে আশরাফুল খুব একটা ভালো করতে পারেননি। ১৩ ম্যাচে রান করতে পেরেছেন ২১.৮৫ গড়ে। সেঞ্চুরি পেয়েছেন একটি।