খেলাধুলা

টেন্ডুলকারের ১০০ সেঞ্চুরির দিন আজ

স্পোর্টস ডেস্ক: আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরির মালিক তিনি। একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে শচীন টেন্ডুলকার করেছেন ১০০ সেঞ্চুরি। ভারতীয় কিংবদন্তির ১০০ সেঞ্চুরির প্রথমটা ক্রিকেট বিশ্ব দেখেছিল আজকের এই দিনেই (১৪ আগস্ট)। টেন্ডুলকারের ১০০ সেঞ্চুরির দিন আজ।

১৯৯০ সালে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ভারত-ইংল্যান্ড সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট সেটি। শেষ ইনিংসে টেন্ডুলকারের সে সেঞ্চুরির সুবাদেই ম্যাচ বাঁচিয়েছিল ভারত। শেষ দিনে ৪০৮ রান তাড়ায় ১৮৩ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে পরাজয় দেখছিল সফরকারীরা। এরপর মনোজ প্রভাকরকে সঙ্গে নিয়ে দিনের শেষ আড়াই ঘণ্টা কাটিয়ে দেন টেন্ডুলকার।

ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে টেন্ডুলকার অপরাজিত ছিলেন ১১৯ রানে। তখন টেন্ডুলকারের (১৭ বছর ১০৭ দিন) চেয়ে কম বয়সে টেস্ট সেঞ্চুরি ছিল মাত্র একজনের- পাকিস্তানের মুশতাক মোহাম্মদ (১৭ বছর ৭৮ দিন)। ২০০১ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সর্বকনিষ্ঠ সেঞ্চুরিয়ানের রেকর্ড গড়েন বাংলাদেশের মোহাম্মদ আশরাফুল (১৭ বছর ৬১ দিন)।

টেন্ডুলকার সেঞ্চুরির সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ২০১২ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডেতে। প্রথম সেঞ্চুরি করে ম্যাচ বাঁচালেও শততম সেঞ্চুরির দিনে পান পরাজয়ের স্বাদ। এশিয়া কাপে ভারতকে ৫ উইকেটে হারিয়ে টেন্ডুলকারের শততম সেঞ্চুরির উপলক্ষটা মাটি করে দিয়েছিল বাংলাদেশ।

টেন্ডুলকারের ১০০ সেঞ্চুরির মধ্যে টেস্টে ৫১টি ও ওয়ানডেতে ৪৯টি। প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডেতে ডাবল সেঞ্চুরির কীর্তিও তারই।

স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের সেই বিখ্যাত ডাক-এর ঘটনাটাও ছিল আজকের এই দিনেই। সেটাও ইংল্যান্ডের আরেক মাঠে, দ্য ওভালে। ৭০০০ রানের মাইলফলকে পৌঁছে গড়কে ১০০-তে নেওয়ার জন্য জীবনের শেষ টেস্টে ব্র্যাডম্যানের দরকার ছিল মাত্র ৪ দিন। কিন্তু দ্বিতীয় বলেই শূন্য রানে আউট হয়ে যান অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি। ইংল্যান্ড ম্যাচ হেরে যায় ইনিংস ব্যবধানে। দ্বিতীয় ইনিংসে তাই আর ব্যাটিংয়ের সুযোগ পাননি সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যান।