খেলাধুলা

বাংলাদেশ দলের পেসাররা ভালোভাবে আগাচ্ছিল

বাংলাদেশ দলের বোলিং ইউনিট চেঞ্জ করার জন্য বড় অবদান রেখেছিলেন হিথ স্ট্রিক। তার অধীনেই একের পর এক পেস বোলিংয়ের গোলা উপর পেয়েছিলো বাংলাদেশ দল। শুধু তাই নয়, বোলারদের এসেছিলো পার্সোনাল ইম্প্রুভমেন্টও।

হিথ স্ট্রিক জাতীয় দলের বোলিং কোচ থাকাকালীন সময়ে আমাদের দলের বোলাররা আত্মবিশ্বাসের সাথে বোলিং করতো। তার অধীনে রুবেল, তাসকিন, ম্যাশ, ইভেন আল-আমিনের ইম্প্রুভমেন্টও ছিল লক্ষণীয়। ২০১৫-১৬ সালের দিকে মনের ভেতর অনেক আশা ছিল যে হিথ স্ট্রিকের অধীনে রুবেল, মুস্তা, রনি, তাসকিনরা ফাস্ট বোলিং মেশিনে পরিণত হবে। সে পথেও কিন্তু বাংলাদেশ দলের পেসাররা ভালোভাবে আগাচ্ছিল।

এই আশাগুলোই এখন হতাশায় পরিণত হচ্ছে। হিথ স্ট্রিক চলে যাওয়ার পর আমাদের পেস বোলিং ইউনিটের কোন উন্নতি তো চোখে পরেনি, বরং পেস বোলিং ইউনিটের অবস্থা দিনদিন খারাপ হচ্ছে। তাসকিন, আল-আমিন হারিয়ে গেলো। মুস্তা ভালো পারফর্ম করলেও আগের সেই ধার নেই। তবে এই সমস্যায় আর কত ভুগবে বাংলাদেশ?