খেলাধুলা

টানা ৩ ম্যাচেই বড় জয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে ২-০ তে হার

টানা ৩ ম্যাচেই বড় জয়। টি-টোয়েন্টি সিরিজে ২-০ তে হার। ওয়ানডে সিরিজও শুরু হলো হার দিয়ে। নিজেদের মাটিতে আয়ারল্যান্ডের একেকটা দিন কাটছে বিভীষিকায়। বেলফাস্টে কাল প্রথম ওয়ানডেতে আইরিশদের ২৯ রানে হারিয়ে তিন ম্যাচ সিরিজে এগিয়ে গেছে আফগানিস্তান।

এদিন টস জিতে আফগানিস্তানকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে শেষ সাত ওভারে ১৬ রানে ৫ উইকেট তুলে নিয়ে লক্ষ্যটা হাতের নাগালেই পেয়েছিল আয়ারল্যান্ড। আফগানরা ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে তুলেছিল ২২৭ রান।

লক্ষ্য তাড়ায় আইরিশদের প্রথম আট ব্যাটসম্যানই ছুঁয়েছিল দুই অঙ্ক। কিন্তু রশিদ খান, আফতাব আলমদের দারুণ বোলিংয়ে শেষ পর্যন্ত পেরে উঠেনি তারা। ৯ বল বাকি থাকতে গুটিয়ে যায় ১৯৮ রানে।

আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ২৫ রানেই দুই ওপেনারকে হারিয়েছিল আফগানিস্তান। এরপর তারা লড়াইয়ের পুঁজি পায় মূলত গুলবাদিন নাইব ও হাশমতউল্লাহ শাহিদির ব্যাটে। দুজনই করেন ফিফটি।

গুলবাদিন ৯৮ বলে ৬ চারে করেন ৬৪ রান। ৮২ বলে ৩ চারে ৫৪ রান করেন হাশমতউল্লাহ। ৪৩.৩ ওভারে আফগানিস্তানের স্কোর ছিল ৪ উইকেটে ১৯৭। আড়াইশ তখন হাতের নাগালেই মনে হচ্ছিল। কিন্তু সেটা হতে দেননি টিম মুরতাগ ও বডি র‍্যানকিন।

মুরতাগ ৩১ রানে নেন ৪ উইকেট। র‍্যানকিন ৪৪ রানে ৩ উইকেট। একটি করে উইকেট জমা পড়ে পিটার চেজ ও অ্যান্ডি বালবির্নির ঝুলিতে।

মাঝারি লক্ষ্য তাড়ায় আইরিশদের প্রথম আট ব্যাটসম্যানের সবাই ছুঁয়ে ফেলেন দুই অঙ্ক। কিন্তু ত্রিশ পার করতে পারেন শুধু বালবার্নি ও গ্যারি উইলসন। দুই ও’ব্রায়েন ভাই কেভিন ও নেইল রান আউটে কাটা পড়েন।

বালবির্নি ৫৫ রান করে পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে ফেরার পরও দলের আশা হয়ে টিকে ছিলেন উইলসন। কিন্তু শেষ দিকে আস্কিং রান রেট বেড়ে যাওয়ায় আর পেরে ওঠেনি স্বাগতিকরা। নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে ৭০ বলে ৩৮ রান করেন উইলসন। আইরিশরা ৪ রানে হারায় শেষ ৩ উইকেট।

আফতাব, রশিদ ও মোহাম্মদ নবী- তিনজনই নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে নেন ২টি করে উইকেট। মুজিব উর রহমান ও গুলবাদিন উইকেট নেন একটি করে। একই মাঠে বুধবার হবে দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচ।