খেলাধুলা

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর কাঁধেই সে দায়িত্ব ছিল

নেইমার না কাভানি? গত মৌসুমে পিএসজির পেনাল্টি নিয়ে বিশাল এক ঝামেলা হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত পেনাল্টি নেওয়ার সে লড়াইয়ে জিতেছেন নেইমার। রিয়াল মাদ্রিদে তেমন কোনো পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার কোনো সম্ভাবনা ছিল না। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর কাঁধেই সে দায়িত্ব ছিল। কিন্তু রোনালদো যখন থাকবেন না?

সার্জিও রামোস গতবারই এর উত্তর দিয়েছিলেন। রোনালদো বিশ্রাম নিলে পেনাল্টি ও ফ্রি কিক নেওয়ার দায়িত্ব অধিনায়ক নিজেই পালন করতেন। এ মৌসুমে তো রোনালদোর বিশ্রামের প্রসঙ্গও নেই, ৯ বছরের সম্পর্ক চুকিয়ে রিয়ালকে বিদায় বলেছেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। দলে করিম বেনজেমা ও গ্যারেথ বেলের মতো ফরোয়ার্ড থাকলেও ঠান্ডা মাথায় কাজ সারার দায়িত্বটা নিজের কাছেই রেখেছেন রামোস।

উয়েফা সুপার কাপেই পেনাল্টিতে গোল করে এ মৌসুমে গোল করা হয়ে গেছে রামোসের। তবে কাল জিরোনার বিপক্ষে ৩৮ মিনিটে মার্কো অ্যাসেনসিও পেনাল্টি এনে দিতেই লা লিগাও গোল করার সুযোগ এসেছে রিয়াল অধিনায়কের সামনে। পানেনকা ধাঁচের এক শটে পেনাল্টিটা কাজে লাগিয়েছেন রামোস। জিরোনার মাঠে সমতায় ফেরে রিয়াল। দলের স্বস্তিতে একটি অর্জনও হয়ে গেছে এই ডিফেন্ডারের। এ নিয়ে টানা ১৫টি লিগ মৌসুমে গোল করেছেন রামোস। লা লিগার একমাত্র ডিফেন্ডার হিসেবে এ অর্জন তাঁর।

২০০৪ সালে লা লিগায় গোলের শুরু রামোসের। তখন সেভিয়ায় রাইট ব্যাক হিসেবে খেলা ১৮ বছরের তরুণ নিয়মিত ফ্রি কিক নিতেন। সেপ্টেম্বরে রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে সরাসরি এক ফ্রি কিকেই লা লিগায় প্রথম গোল তাঁর। পরের মৌসুমে রিয়ালে যোগ দিয়েছেন রামোস। মালাগার মাঠে ২০০৫ সালের ডিসেম্বরে প্রথম রিয়ালের হয়ে গোল করেছেন। এরপর থেকেই নিয়মিত ক্লাবের ত্রাতা হয়ে এসেছেন। গত ১৪ মৌসুমে (এ মৌসুমে মাত্র ২ ম্যাচ হয়েছে) ৫৪ গোল করেছেন রামোস। সব প্রতিযোগিতা মিলে ৭৫টি। এর মধ্যে সবচেয়ে বিখ্যাত গোলটি অবশ্যই ২০১৪ সালে। চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে যোগ করা সময়ে সেই হেড না করলে রিয়ালের লা ডেসিমার অপেক্ষা বাড়ত আরও কিছু বছর।

ডিফেন্ডারদের রেকর্ড বেশ কয়েক বছর ধরেই রামোসের কাছে। তবে লা লিগায় টানা গোল করার রেকর্ড ছুঁতে রামোসকে যেতে হবে আরও অনেক দূর। ১৯৪০ থেকে ১৯৫৯ পর্যন্ত টানা ১৯ মৌসুমে অ্যাথলেটিক ক্লাবের হয়ে গোল করেছিলেন পিরু গাইনজা। সে রেকর্ড কি রামোস ছুঁতে পারবেন? ৩২ বছর বয়সী রামোসকে যে সে ক্ষেত্রে খেলতে হবে আরও ৪ মৌসুম। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে এত দিন খেলার স্বপ্ন দেখাটা একটু কঠিন বৈকি!-প্রথম আলো