একটি বিজ্ঞাপনের কাজে হিমাচলে এসেছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি

Loading...

প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির পরিবারের জন্য কোনও অর্থই খরচ করছে না হিমাচল সরকার। কেবল মাত্র তাঁর নিরপত্তার বিষয়টিই সরকারের তরফে দেখা হচ্ছে বলে বিবৃতি দিলেন হিমাচলের মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম ঠাকুর।

প্রসঙ্গত, একটি বিজ্ঞাপনের কাজে হিমাচলে এসেছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। তাঁর সঙ্গে এসেছেন সাক্ষী এবং মেয়ে জিভাও। জানা যাচ্ছে ওয়াইলডফ্লাওয়ার হলেই সপরিবারে থাকছেন তিনি।  বিজ্ঞাপনের শুটিং শেষ না হওয়া পর্যন্ত সেখানেই থাকার কথা তাঁর। হোটেল সূত্রের খবর চলতি মাসের শেষ দিন (৩১ অগাস্ট) পর্যন্ত প্রাক্তন অধিনায়কের নামেই বুকিং রয়েছে।

তবে ধোনির এই হিমাচল সফর নিয়ে বিরোধীদের আক্রমণের মুখে পড়তে হয় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম ঠাকুরকে। বিজেপি সরকার এবং মুখ্যমন্ত্রীকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে বিরোধীরা অভিযোগ করতে শুরু করে, ধোনির থাকা, খাওয়ার বন্দোবস্ত না কি করেছে সরকার। আর তার জন্য রাজকোষ থেকে খসছে বিপুল পরিমাণ অর্থ। যদিও সরকারে তরফে বিরোধদের এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়। কিন্তু তাতেও বিতর্ক থামে না। এমন অবস্থায় বিবৃতি দিয়ে পরিস্থিতি সামাল দিতে হল খোদ মুখ্যমন্ত্রীকে।

জয়রাম ঠাকুর জানিয়েছেন, “ধোনি আমাদের অতিথি। তিনি কোনও রাজনৈতিক দলের নেতা নন। এখানে (হিমাচল প্রদেশ) তিনি এসেছেন শুটিংয়ের কাজে। আর এখানে তাঁর যাবতীয় খরচ তিনি নিজেই বহন করছেন, সরকার কোনও অর্থ ব্যয় করছে না। যেহেতু তিনি একজন আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্ব তাই কেবল মাত্র তাঁর নিরপত্তার বিষয়টি দেখছে সরকার”।

যদিও এই বিতর্ক নিয়ে কোনও মন্তব্যই করেননি মহেন্দ্র সিং ধোনি। এবং প্রাক্তন ভারত অধিনায়কের তরফে এই নির্লিপ্ত অবস্থানই কাম্য বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহলের একাংশের।

Be the first to comment on "একটি বিজ্ঞাপনের কাজে হিমাচলে এসেছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*