পাকিস্তানের হাতে রয়েছে ১৪০ থেকে ১৫০টি পারমাণবিক অস্ত্র

Loading...
এখন পাকিস্তানের হাতে রয়েছে ১৪০ থেকে ১৫০টি পারমাণবিক অস্ত্র। ২০২৫ সালের মধ্যে তা ২২০ থেকে ২৫০টি বাড়িয়ে নেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে দেশটি। পঞ্চম বৃহত্তম পারমাণবিক শক্তিধর দেশ হওয়ার পথে পাকিস্তান। 
এই হারে যদি পাকিস্তান পারমাণবিক অস্ত্র বাড়াতে থাকে তাহলে তা অনায়াসে ২৫০ ছাড়িয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। সাম্প্রতিক একটি রিপোর্টে এমন তথ্য প্রকাশের পর তা নিয়ে রীতিমত নজর দেয়া শুরু করেছে বিশ্ব।
মার্কিন প্রতিরক্ষা সংস্থার ওই রিপোর্ট অনুযায়ী, পাকিস্তান ক্রমাগত পারমাণবিক অস্ত্র বাড়িয়ে চলেছে। এমনকী তারা সংরক্ষণ করতে শুরু করেছে পারমাণবিক অস্ত্রের। যেভাবে বেড়ে চলেছে তাতে ২০২৫ সালে পারমাণবিক অস্ত্রের সংখ্যা দাঁড়াবে ২২০ থেকে ২৫০টি। আর যদি এটা ঘটে তাহলে পাকিস্তান বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তম পারমাণ০বিক শক্তিধর দেশে পরিণত হবে। হ্যান্স এম ক্রিস্টেনসেন, রবার্ট এস নরিস এবং জুলিয়া ডায়মন্ড সম্প্রতি এই রিপোর্টটি দিয়েছেন। ২০১৮ সালের এই রিপোর্টে বেশ চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।
পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান যখন প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে শান্তির সম্পর্কের কথা বলছেন, তখন গোপনে পারমাণবিক অস্ত্রের সংখ্যা বাড়ানো এবং সংরক্ষণ নিঃসন্দেহে পেছন থেকে ছুরি মারার কৌশল বলেই মনে করছেন আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।
কারণ রিপোর্ট অনুযায়ী, পাকিস্তান পারমাণবিক অস্ত্রের উৎপাদন ও বৃদ্ধি ঘটাতে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। যা আগামী ১০ বছরে বিশাল আকার নেবে। স্যাটেলাইটের চিত্রে ধরা পড়েছে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী এবং বিমান বাহিনী মোবাইল লঞ্চারসসহ ভূগর্ভে আক্রমণ করার জন্য নানা ধরণের পারমাণবিক অস্ত্রের সম্ভার বাড়িয়ে চলেছে।