এশিয়া কাপে অনিশ্চিত তামিম সাকিব আশরাফুলকে দলে নেয়ার ইঙ্গিত দিয়ে যা বলল বিসিবি

Loading...

এশিয়া কাপে ওপেনিংয়ে তামিমকে ব্যাট হাতে যদি দেখা না যায় তাহলে ম্যাচটি কেমন হবে। ম্যাচের পরিসংখ্যান বলছে বাংলাদেশের বেশিরভাগ জয়ী ম্যাচে তামিমের ব্যাটে ছিল রানের ফোয়ারা। তাই তাকে ছাড়া চিন্তা করা দুষ্কর। এশিয়া কাপের উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলংকার বিপক্ষে তার মাঠে নামা নিয়ে শংকা দেখা দিয়েছে। গেল বুধবার মিরপুরে ফিল্ডিং অনুশীলনের সময় ডান হাতের তর্জনীতে চোট পান নাজমুল।

তার আঙুলের সবশেষ অবস্থার রিপোর্ট এখনও পায়নি বিসিবি। আজ পাওয়ার কথা। এর পরই জানা যাবে এশিয়া কাপে তিনি খেলতে যাচ্ছেন কি না। এর কয়েকদিন আগে সেই ফিল্ডিং অনুশীলন করতে গিয়ে আঙুলে চোট পান তামিম। প্রাথমিকভাবে সেটাকে ততটা গুরুতর ভাবা হয়নি। এখন আঙুলে চিড় ধরা পড়েছে। ব্যথা না কমায় স্ক্যান করালে তাতে চিড় দেখা গেছে।

এ কারণে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে তার মাঠে নামা নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। তবে এরপর খেলতে পারবেন তিনি! নান্নু বলেন, তামিমের হাতেও একটু চোট আছে। প্রথম ম্যাচের আগেই তা সেরে যেতে পারে। আবার নাও পারে। এখনো কোনো কিছুই চূড়ান্ত নয়। এবারের এশিয়া কাপ মাঠে গড়াবে ১৫ সেপ্টেম্বর।

উদ্বোধনী ম্যাচে লংকানদের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ। সেই ম্যাচ জিতে টুর্নামেন্ট শুরু করতে চান টাইগার দলপতি মাশরাফি বিন মুর্তজা। এজন্য যে তামিমকে খুবই দরকার হবে তার।

অবশ্য এখনো হাতে রয়েছে সাতদিন। এর মাঝে ড্যাশিং ওপেনারের সুস্থতা কামনা করছে বাংলাদেশ। যদিও প্রথমে ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। পরে চোটজর্জর দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে মুমিনুল হককে।বিসিবি জানান যেহেতু তামিম সাকিব দুই জনেই অনিশ্চিত এখন বিকল্প হিসেবে আশরাফুলকে চিন্তায় রাখা হয়েছে,যদি তামিম সাকিব না ফেরে তাহলে ের বিকল্প কিছু নেই। 

বেশ কিছুদিন ধরেই বিসিবিতে তোলপাড় সাকিব আল হাসানের ইনজুরি ইস্যু নিয়ে। সাকিব বলছেন তিনি শতভাগ ফিট নন, ২০-৩০ শতাংশ ফিট হয়েই খেলবেন এশিয়া কাপে।

আর সামনের জিম্বাবুয়ে সফরের সময়ে করাবেন আঙুলের অপারেশন। তাহলে ইনজুরি আক্রান্ত সাকিবকে নিয়ে কি এশিয়া কাপে পরিকল্পনা করা ঠিক হবে? অধিনায়ক মাশরাফি বলছেন, অপারেশন করার সিদ্ধান্ত সাকিবের। তবে সাকিবের এমন ফিটনেসও প্রতিপক্ষের জন্য ভয়ঙ্কর, মনে করিয়ে দিচ্ছেন তিনি।

‘শেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে সাকিব যেভাবে খেলেছে, সেই হিসেবে সাকিবই সবচেয়ে ভালো বলতে পারবে সে কেমন আছে। সবমিলিয়ে যদি আপনি সাকিবের পারফর্মেন্স দেখেন, তাহলে বলতে হবে আমাদের জয়ের জন্য তার পারফর্মেন্স অনেক বড় ভূমিকা পালন করেছে।

‘আমার কাছে মনে হয় ও অতটুকু সুস্থ থাকলে সেটা দলের জন্য যথেষ্ট। তবে সিদ্ধান্তটা সাকিবের। এখানে কারো কোন হাত নেই। সিদ্ধান্ত নেয়ার পর এখানে অজুহাতের কোন জায়গা থাকার কথা না। সে যখন খেলবে তখন শতভাগ দিয়েই খেলবে।’