বাংলাদেশ ক্রিকেট এর জন্য অনেক বড় শুখবর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে আর বাধা নেই আশরাফুলের

Loading...
আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে আর বাধা নেই আশরাফুলের। বাধা না থাকলেও শিগগিরই জাতীয় দলের দরজায় পা রাখার সুযোগ নেই তাঁর। এবারের এশিয়া কাপও আশরাফুল দেখবেন ‘দর্শক’ হিসেবে। এশিয়া কাপে বাংলাদেশের খুব ভালো সম্ভাবনা দেখছেন তিনি।

ম্যাচ ফিক্সিংয়ের দায়ে পাঁচ বছর নিষিদ্ধ ছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। সেই নিষেধাজ্ঞা শেষ হয়েছে গত মাসে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে আর বাধা নেই ৩৪ বছর বয়সী ব্যাটসম্যানের। বাধা না থাকলেও শিগগির জাতীয় দলের দরজায় পা রাখার সুযোগ নেই তাঁর। এবারের এশিয়া কাপও আশরাফুল দেখবেন ‘দর্শক’ হিসেবে। এশিয়া কাপে বাংলাদেশের কতটা সম্ভাবনা দেখছেন তিনি?

মিরপুরে আজ দুপুরে সমর্থকদের সংগঠন ‘ফ্যানস অব বাংলাদেশ ক্রিকেট: এফবিসি টাইগার্সের দুই বছর পূর্তি অনুষ্ঠানে আশরাফুল পাকিস্তানকে ফেবারিট না বললেও মনে করিয়ে দিলেন পুরোনো তথ্যটাই, ‘এশিয়া কাপ আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত হবে। সে কারণেই পাকিস্তানের সুবিধা একটু বেশি থাকবে। যেহেতু তারা সেখানকার মাঠকে নিজেদের মাঠ হিসেবে ব্যবহার করে।’
আশরাফুল আসলে এগিয়ে রাখলেন বাংলাদেশকেই, ‘আমরা গত তিন এশিয়া কাপের দুটিতেই ফাইনাল খেলেছি। একটা হয়েছে টি-টোয়েন্টি সংস্করণে। যদি নিজেদের সেরাটা দিতে পারি অবশ্যই ভালো কিছু সম্ভব। এবার যেহেতু ৫০ ওভারের টুর্নামেন্ট হবে আমাদের সম্ভাবনাই বেশি। টি-টোয়েন্টি হলে আমাদের জন্য কঠিন হতো। টি-টোয়েন্টি সংস্করণে আফগানিস্তান অনেক শক্তিশালী দল। ওদের তিনটা ভালো মানের স্পিনার আছে। ২০ ওভারের মধ্যে তিনজন মানসম্মত স্পিনার যদি ১২ ওভার করে, ম্যাচ জেতা কঠিন হয়ে যায়।’

বাংলাদেশের খেলা আশরাফুল দর্শক হয়ে দেখছেন ফিক্সিংয়ের দায়ে নিষিদ্ধ হওয়ার পর থেকেই। অপেক্ষাটা কবে শেষ হবে না কি আদৌ শেষ হবে না, সেটি বলা কঠিন। তবে আশরাফুল আবারও বললেন, ২০১৯ বিশ্বকাপ দলে ফেরা তাঁর মূল লক্ষ্য, ‘এখন আমি জাতীয় দলের প্রস্তুতি নিচ্ছি। যেখানেই খেলি ভালো ক্রিকেট খেলতে চাই। রান করলে তখনই হয়তো বিবেচনায় আসব। নির্বাচনের বিষয়টি আমার ওপর নির্ভর করছে। ভালো ক্রিকেট খেললে, জাতীয় লিগে ২০০-৩০০ রান করতে পারলে তখন হয়তো বলা যাবে বিবেচনায় আসব কি আসব না। কোনো সিরিজের কথা চিন্তা করছি না। হ্যাঁ, বিশ্বকাপের স্বপ্ন আমি দেখি। ২০১৫ বিশ্বকাপে ছিলাম না। নিষিদ্ধ ছিলাম তখন। তখন থেকেই স্বপ্ন দেখছি, যেভাবে হোক ভালো খেলে ২০১৯ বিশ্বকাপ দলে জায়গা করে নিতে হবে।’

সবশেষ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে পাঁচটি সেঞ্চুরি করলেও স্ট্রাইকরেট নিয়ে নানা কথা শুনতে হচ্ছে আশরাফুলকে। আপাতত জাতীয় লিগে মনোযোগ থাকলেও আশরাফুল মনে করেন আগামী বিপিএলে দুর্দান্ত কিছু করতে পারলে আসতে পারবেন সবার নজরে। এই টুর্নামেন্ট টিভিতে সরাসরি সম্প্রচার হয় বলেই এমন ধারণা তাঁর, ‘বিপিএল আন্তর্জাতিক মানের টুর্নামেন্ট। আমি ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ খেলেছি। পাঁচটা সেঞ্চুরি করেছি, কেউ খেলা দেখেনি। শুধু শুনেছে আমার স্ট্রাইকরেট ৭৪। আমি মোহামেডানের সঙ্গে ১২৭ করেছিলাম, ৪৪ ওভারে। তখনো ৬ উইকেট ছিল। আমি আউট হতেই ২০ রানের মধ্যে দল অলআউট। কেউ মাঠে যেয়ে খেলা দেখেনি। স্কোর দেখে ম্যাচের পরিস্থিতি বোঝা কঠিন। খেলা দেখলে এসব প্রশ্ন আসত না। বিপিএলে যদি সুযোগ পাই এটা ভালো প্লাটফর্ম, এখানে ভালো করলে আর প্রশ্ন থাকবে না।’