অঞ্জু ঘোষ বললেন কলকাতা চলে যাওয়ার কারণ

Loading...

বিনোদন ডেস্ক: একসময় রূপালী পর্দা কাঁপাতেন তিনি। একের পর এক ছবি সুপার ডুপার হিট হতো। সেই অঞ্জু ঘোষ হঠাৎ অনেকটা নীরবেই বাংলাদেশের চলচ্চিত্র থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেন। চলে যান ওপার বাংলায়। গেলেন তো গেলেন, আর ফিরলেন না! টানা ২২ বছর কলকাতায় থেকে সদ্য দেশে ফিরেচেন জনপ্রিয় এই নায়িকা। আজ তার প্রতি সাংবাদিকদের প্রশ্ন ছিল, কেন চলে গিয়েছিলেন কলকাতায়? কেনই বা আর ফিরে আসলেন না?

প্রিয় কর্মস্থল এফডিসির শিল্পী সমিতির অফিসে বসে অঞ্জু ঘোষ শোনালেন তার কাহিনী। কোনো ক্ষোভ-অভিমান ছিল কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে বললেন, ‘আমার কোনোদিন কারও প্রতি ক্ষোভ ছিল না। ফলে বিশেষ কোনো কারণ কিংবা ব্যক্তির কারণে আমি পালিয়ে যাইনি। মজার বিষয় হলো, আমি ওখানে (কলকাতায়) দুইদিনের জন্য গিয়ে ফেঁসে গেছি। আর ফেরা হলো না। এর পেছনে আর কোনো কিন্তু নেই।’

তিনি আরও বললেন, ‘এটা আমার দেশ। এখান থেকেই নিঃশ্বাস নিয়ে বড় হয়েছি। সেই নিঃশ্বাস নিয়েই বেঁচে এখনও আছি। যেখানেই থাকি বাংলাদেশ আমার হৃদয়ে আছে।’

বাংলা সিনেমার চলমান বেহাল অবস্থা দেখে কষ্ট পান এই গুণী অভিনেত্রী। তিনি বলেন, ‘ঢাকায় এসে আমি যে ভাই-ভাবির বাসায় উঠেছি। সেখানকার একটা কথা বলি। গতকাল সন্ধ্যায় ড্রইংরুমে বসে ভাবি একটা সিরিয়াল দেখছিলেন। আমিও বসে আছি। অনেকক্ষণ ধরে লক্ষ করলাম, ভাবি কেমন মনযোগ দিয়ে সিরিয়ালটা দেখছিলেন। আমি সিরিয়াল না দেখে ভাবিকেই দেখলাম মুগ্ধ হয়ে।

একই দৃশ্য দেখি কলকাতাতেও, ঘরে ঘরে। এসব দেখে বুক চিনচিন করে। ভাবতে কষ্ট হয়, এই মানুষগুলো সিনেমাকে এখন আর এভাবে দেখে না। যেটা আমাদের সময়ে দেখত। মানুষ এখন সিরিয়াল দেখে, সিনেমা না। এসব নিয়ে আমাদের ভাবা দরকার।’