ফুটে উঠল ‘মৃত্যুর ফুল’, ১৫ বছরে এক বার বিরল দৃশ্য!

Loading...

এক্সক্লুসিভ ডেস্ক: হান্টিংটন লাইব্রেরিতে মৃত্যুকুসুম দেখতে আসা উৎসাহীদের মতে, এই ফুল দেখা সারা জীবন মনে রাখার মতো এক ঘটনা।
তার নাম ‘মৃত্যুকুসুম’। না কোনও রহস্য উপন্যাস থেকে উঠে আসা কল্পনা নয়, সত্যিই এই ফুল রয়েছে এই পৃথিবীতেই। যার ডাক নাম ‘কর্পস ফ্লাওয়ার’। সম্প্রতি দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ার হান্টিংটন লাইব্রেরির বাগানে পুটে উঠল এই ফুল, যা দেখতে হাজারে হাজারে ভিড় জমাচ্ছেন কৌতূহলীরা।

সংবাদ সংস্থার খবরে প্রকাশ, এই ফুলের বৈজ্ঞানিক নাম ‘অ্যামরফোফ্যালাস টাইটানাম’। কিন্তু এক বিশেষ কারণে এই ফুলকে ‘স্টিংক’ বলে ডাকা হয়। কারণটি এই— ফোটার পরে এই ফুল থেকে যে গন্ধ ছড়ায়, তা পচা মাংস বা মৃতদেহের গন্ধ। হান্টিংটন লাইব্রেরির মুখপাত্র লিজা ব্ল্যাকবার্ন জানিয়েছেন, এই ফুল ফুটতে সময় নেয় ১৫ বছর। কিন্তু এর ফুটে ওঠার প্রকৃত সময় মাত্র ২৪ ঘণ্টা।

২০১৪-এর ২৩ অগস্ট মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সর্বশেষ কর্পস ফ্লাওয়ারটি ফুটেছিল সান ম্যারিনোয়। হান্টিংটন লাইব্রেরিতে মৃত্যুকুসুম দেখতে আসা উৎসাহীদের মতে, এই ফুল দেখা সারা জীবন মনে রাখার মতো এক ঘটনা।

এক সময়ে এই ফুল ফুটতো জাভা ও সুমাত্রার কিছু কিছু অঞ্চলে। পরে উদ্ভিদবিদ্যা চর্চাকারীরা তা বিভিন্ন দেশে নিয়ে যান। বলাই বাহুল্য, মার্কিন মুলুকে এই ফুল পৌঁছেছিল বোট্যানি-চর্চার হাত ধরেই।-এবেলা