Notunshokal.com
খেলাধুলা

মানুষ সারাজীবন মনে রাখবে তার অসীম সাহসিকতার এই নজির: মাশরাফি

স্পোর্টস ডেস্ক: চারদিকে প্রশংসার বন্যা। ক্রিকেট ইতিহাসে বিরল একটি জায়গায় পৌঁছে গেলেন তামিম ইকবাল। দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে অধিষ্ঠিত করলেন দারুণ এক সম্মানের আসনে। বাংলাদেশের মানুষ যে হারতে জানে না, শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লড়াই করতে জানে, সেটা দেখিয়ে দিলেন তামিম ইকবাল। স্লিংয়ে ঝোলানো হাত, এই অবস্থায় এক হাত দিয়ে ব্যাট করতে নেমে গেলেন মাঠে। শুধু দেশ এবং দলের প্রয়োজনে।

পুরো দলকে আত্মবিশ্বাসে ভাসিয়েছেন। উজ্জীবনি শক্তি এনে দিয়েছেন দলের প্রতিটি ক্রিকেটারের মধ্যে। যে কারণে ম্যাচটিতে বাংলাদেশ জিতেছে ১৩৭ রানের বিশাল ব্যবধানে। ম্যাচ শেষে বিজয়ী দলের অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফি বিন মর্তুজা প্রশংসা করলেন তামিমের। অকপটে জানিয়ে দিলেন, ‘তামিম যা করেছে, সেটা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। মানুষ সারাজীবন মনে রাখবে তার অসীম সাহসিকতার এই নজির।’

দ্রুত দুই উইকেট হারিয়ে সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়ানো তো বাংলাদেশের বিশাল উন্নতিরই আভাস দিয়ে যাচ্ছে। মোহাম্মদ মিঠুনকে সঙ্গে নিয়ে মুশফিকুর রহীম যেভাবে দলের ইনিংস গড়লেন এবং স্কোরকে এগিয়ে নিলেন সেটা অবিশ্বাস্য। মাশরাফি তার প্রশংসা করলেন।

মুশফিককে ধন্যবাদ দিয়ে তিনি বলেন, ‘দুই উইকেট পড়ার পর যে চাপে আমরা পড়ে গিয়েছিলাম, সেখানে মুশফিক এবং মিঠুন দারুণ ব্যাটিং করেছে। তামিমের কথা তো এক কথায় বলা যায় না। মানুষের সব সময় তাকে মনে রাখা উচিৎ। সিনিয়ররা যেভাবে পারফরম্যান্স করেছে, এটা সত্যিই অসাধারণ।’

মাশরাফির মতে, দলের আরও উন্নতি করা প্রয়োজন। শুরুতে যেভাবে উইকেট পড়েছে, তাতে সে জায়গাটায় নজর দিতে হবে। মিঠুনের প্রশংসা করে অধিনায়ক বলেন, ‘নিজের ভুলের সময়টা থেকে বেরিয়ে এসেছে মিঠুন।’ উইকেট না পড়লে ২৮০-৯০, সহজেই হতে পারতো বিশ্বাস মাশরাফির। একই সঙ্গে নিজেদের ফিল্ডিংয়ের উন্নতি হয়েছে বলেও জানালেন দলীয় অধিনায়ক।

আরও পড়ুন

হ্যামিল্টন মাসাকাদজা অাউট। জিম্বাবুয়ের তৃতীয় উইকেটের পতন

হ্যাটট্রিক করে বিশ্বকাপের মিশন শুরু করলেন মেসি। দেখুন আজকের ম্যাচে মেসির হ্যাটট্রিকের ভিডিও

হ্যাটট্রিক করলো চেলসি

Syed Hasibul