বিনোদন

পুরস্কৃত ১৪টি দেশীয় চলচ্চিত্র

৮ অক্টোবর স্টার সিনেপ্লেক্সের ১৪তম বর্ষপূর্তিতে এক জমকালো আয়োজনে দেশীয় ১৪টি চলচ্চিত্রকে সম্মাননা জানানো হয়। সন্ধ্যা ৬টা থেকে স্টার সিনেপ্রেক্সের স্টার জোনে সম্মাননা প্রদানের পাশাপাশি ছিল লালগালিচা ফটোসেশন, বক্তব্য আর সংগীতানুষ্ঠান। গত ১৪ বছরে স্টার সিনেপ্লেক্সসহ দেশের অন্য হলগুলোতে মুক্তি পাওয়া উল্লেখযোগ্য ১৪টি দেশীয় সিনেমাকে যাচাই-বাছাই শেষে পুরস্কৃত করা হয় এই বিশেষ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে। পুরস্কার প্রদান করেন স্টার সিনেপ্লেক্সের চেয়ারম্যান মাহবুব রহমান রুহেল। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, বিশেষ অতিথি গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, চলচ্চিত্র অভিনেতা আকবর পাঠান ফারুক, আবুল হায়াত, লায়লা হাসান, আফসানা মিমি, শাকিব খান, ওমর সানি, রিয়াজ, ফেরদৌস, পূর্ণিমা, গিয়াস উদ্দিন সেলিম, মোস্তফা সরয়ার ফারুকী, দীপঙ্কর দীপন, আবদুল আজিজ, চয়নিকা চৌধুরী, এস এ হক অলিক, ফখরুল আবেদীন, আরিফিন শুভ, রোশান, জয়া আহসান, সোহানা সাবা প্রমুখ। এইদিনে গুণী অভিনেত্রী শর্মিলী আহমেদকে কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ‘ক্রেস্ট অব অ্যাপ্রিসিয়েশন’ প্রদান করা হয়। পুরস্কৃত ১৪টি দেশীয় ছবির মধ্যে শাকিব খান অভিনীত শিকারীসহ রিয়াজের ‘মোল্লাবাড়ির বৌ’, ‘দারুচিনি দ্বীপ’, ‘চন্দ্রগ্রহণ’ ও ‘হৃদয়ের কথা’, চঞ্চল চৌধুরীর ‘মনপুরা’ ও আয়নাবাজি’, মোশাররফ-তিশার ‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার’, জয়ার ‘গেরিলা’, ‘চোরাবালি’ ও ‘জিরো ডিগ্রী’, মৌসুমীর ‘প্রজাপতি’, শুভ-মাহির ‘ঢাকা অ্যাটাক’ এবং পরমব্রত-অর্পণা-মাজনুনের ’ভুবন মাঝি’কে পুরস্কৃত করা হয়। ঢাকাই ছবির নাম্বার ওয়ান নায়ক শাকিব খান বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রতিটি বিভাগীয় শহর এবং প্রতিটি জেলায় সিনেপ্লেক্স করা হোক। দেখবেন আমাদের চলচ্চিত্রের ব্যবসা আরও ভালো হবে। ভালো ভালো চলচ্চিত্র নির্মিত হবে।’ আয়োজনের সঞ্চালক ছিলেন অভিনেতা-নির্মাতা শাহরিয়ার নাজিম জয়।