খেলাধুলা

অধিনায়ক মাশরাফিই ঠিক করে দিলেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৫ নম্বর পজিশনে খেলবেন কে

আঙুলের ইনজুরিতে পড়ে মাস তিনেকের জন্য ছিটকে যাওয়া সাকিব আল হাসানকে পাওয়া যাবে না ঘরে মাঠে আসন্ন জিম্বাবুয়ে সিরিজে, পাওয়া যাবে না সাত-আট সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে চলে যাওয়া তামিম ইকবালকেও।

তাইতো অনেকটা অনুমেয়ই ছিলো এই সিরিজে দেখা যাবে নতুন কাউকে। দল ঘোষণার পর জানা গেছে নামটা। সুযোগ মিলেছে ঘরোয়া ক্রিকেটের পরীক্ষিত নাম ফজলে রাব্বির। সেজন্যই এসে যাচ্ছে প্রশ্নটা, সাকিব-তামিমের অনুপস্থিতিতে কোথায় ব্যাট করতে দেখা যাবে রাব্বিকে?

গত ১১ অক্টোবর ১৫ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা পর নির্বাচকরা পরিষ্কার করে দিয়েছেন মূলত সাকিব আল হাসানের পরিবর্তেই দলে সুযোগ দেওয়া হয়েছে অলরাউন্ডার ফজলে রাব্বিকে। এদিকে সাকিব সাম্প্রতিক সময়ে ব্যাট করেছেন টপ অর্ডার ও মিডল অর্ডার উভয় জায়গার ব্যাটসম্যান হিসেবে। তাহকে কি সাকিবের পজিশনেই ব্যাটিং করতে দেখা রাব্বিকে?

সেইটার উত্তর অবশ্য মিলেছে দলের নির্বাচক ও সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমনের কণ্ঠে। ঠিক কত নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে ফজলে রাব্বি ব্যাট করবেন সেটি পরিষ্কার করে না বললেও বাশার বলেছেন- মিডল অর্ডারে দলের হাল ধরার দায়িত্বই থাকবে তার কাঁধে। এই প্রসঙ্গে বাশার জানান, ‘ও (ফজলে রাব্বি) শুরু করেছিল একজন ওপেনার হিসেবে। সেখান থেকে ৩ নম্বরে ব্যাট করেছে। এখন সে মিডেল অর্ডারে, পাঁচ-ছয়ে ব্যাট করছে।’

বাশার আরো যোগ করেন, ‘এছাড়াও ‘এ’ দয়ের হয়ে আয়ারল্যান্ড সফরে সে ৫-৬ নাম্বারে দারুণ খেলেছে (৩ ইনিংসে ৪৫.৩৩ গড়ে ১৩৬ রান)। আমি মনে করি তিন থেকে পাঁচ ছয়ের মধ্যে ব্যাট করা আদর্শ হবে ওর জন্য। মূলত মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলবে দলে।’

ফজলে রাব্বিকে একটি পরিপূর্ণ প্যাকেজ আখ্যা দিয়ে জাতীয় দলের সাবেক এই অধিনায়ক বলেন, ‘আমি তাঁকে অনেক আগেই দেখেছি। ওর ব্যাটিংটা এখন অনেক বদলে গেছে। আগে খুব অস্থির হয়ে ব্যাটিং করত, আগ্রাসী ব্যাটিং করত। কিন্তু ইদানীং আমি দেখছি (আয়ারল্যান্ড সিরিজ) সে দলের প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যাটিং করে থাকে। প্রান্ত বদল করে খেলে।

একই সাথে যখন দরকার তখন বড় শট খেলার সামর্থ্য রাখে। সে এখন একজন পরিণত ব্যাটসম্যান। যেটা তাকে দলে নেয়ার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলেছে। এছাড়াও সে একজন ভাল ফিল্ডার, সাথে স্পিন বল করতে পারে। সব মিলিয়ে আমাদের জন্য প্যাকেজ বলা চলে।’