Notunshokal.com
খেলাধুলা

৬ বছর পর স্পট ফিক্সিং নিয়ে বোমা ফাটালেন তারকা ক্রিকেটার

নিষেধাজ্ঞার ৬ বছর পর স্পট ফিক্সিংয়ে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করলেন পাকিস্তানের সাবেক তারকা লেগ স্পিনার দানিশ কানেরিয়া। ২০০৯ সালে কাউন্টি ক্লাব এসেক্সের হয়ে খেলার সময় এ ঘটনা ঘটে। এর তিন বছর পর ২০১২ সালে ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড তাকে আজীবন নিষিদ্ধ করার পর বৃহস্পতিবার সেই ঘটনার কথা নিজ মুখে স্বীকার করে নেন তিনি। শুধু তাই নয়, সতীর্থ মার্ভিন ওয়েস্টফিল্ডকে স্পট ফিক্সিংয়ে জড়ানোর কথাও স্বীকার করেছেন কানেরিয়া।

২০০৯ ডারহামের বিরুদ্ধে ইংলিশ কাউন্টির ম্যাচে এক বুকির থেকে মোটা অংকের টাকা নিয়েছিলেন ওয়েস্টফিল্ড। পরিবর্তে ওই বুকির সঙ্গে একটি ওভারে বড় অংকের রান দেওয়ার চুক্তি হয়েছিল তাঁর। এই গোটা বিষয়টি মধ্যস্থতা করেছিলেন দানিশ কানেরিয়া। পরে ওই ফিক্সিংকাণ্ডে দোষী প্রমাণিত হওয়ার পর চার মাসের কারাদণ্ড হয় ওয়েস্টফিল্ডের।

২০১২ সালে জুন মাসে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে ফিক্সিং কাণ্ডে জড়িত থাকার অপরাধে কানেরিয়াকে আজীবন নির্বাসিত করে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। অভিযোগ, ওয়েস্টফিল্ডকে অচেনা ওই বুকির থেকে টাকা নিতে বাধ্য করেছিলেন কানেরিয়া। তবে সেদেশের ক্রিকেট বোর্ড কর্তৃক নির্বাসিত হলেও ঘটনায় জড়িত থাকার কথা বরাবরই অস্বীকার করে আসছিলেন এই লেগ স্পিনার। অবশেষে বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের এক শীর্ষ সংবাদমাধ্যমের কাছে স্পট ফিক্সিং কাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে নেন কানেরিয়া।

একটি বিবৃতিতে পাকিস্তানের সাবেক এই তারকা ক্রিকেটার জানান, “আমি দানিশ কানেরিয়া। স্বীকার করে নিচ্ছি যে, ২০১২ আমার বিরুদ্ধে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের আনা অভিযোগ দুটি একেবারেই সত্য। সত্যিটা এতদিন স্বীকার করার শক্তি আমার ছিল না। কিন্তু মিথ্যা সঙ্গী করে সারাজীবন বেঁচে থাকা সম্ভব নয়।”

পাশাপাশি এসেক্সে তাঁর সতীর্থ ওয়েস্টফিল্ড, এসেক্স ক্রিকেট ক্লাব, ক্লাবের ক্রিকেট অনুরাগী এবং সর্বোপরি তাঁর দেশের ক্রিকেট অনুরাগীদের থেকে এই ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন কানেরিয়া।

আরও পড়ুন

হ্যামিল্টন মাসাকাদজা অাউট। জিম্বাবুয়ের তৃতীয় উইকেটের পতন

হ্যাটট্রিক করে বিশ্বকাপের মিশন শুরু করলেন মেসি। দেখুন আজকের ম্যাচে মেসির হ্যাটট্রিকের ভিডিও

হ্যাটট্রিক করলো চেলসি

Syed Hasibul