Notunshokal.com
খেলাধুলা

বাংলাদেশকে চ্যালেঞ্জিং টার্গেট ছুড়ে দিল জিম্বাবুয়ে

৭০ রানে দুই উইকেট পড়ার পর দলের হাল ধরেন টেলর ও উইলিয়ামস। এ দু’জনের ব্যাটে দুরন্ত গতিতেই এগিয়ে যাচ্ছিল জিম্বাবুইয়ানরা। ক্যারিয়ারে ৩৫তম হাফ সেঞ্চুরি করে নিজেকে আরও সামনে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন টেলর। এ দু’জনের ব্যাটে ৭৭ রানের জুটি গড়ে ওঠার পর অবশেষে সেখানে ভাঙন ধরাতে পেরেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ৩০তম ওভারে জুটি ভাঙার জন্য মাহমুদউল্লাহর হাতে বল তুলে দেন অধিনায়ক মাশরাফি। ওভারের তৃতীয় বলেই তার পাতা ফাঁদে পা দিলেন টেলর। রিয়াদের ঘূর্ণি রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে ব্যাট-বল করতে পারেননি টেলর। ফলে লেগ বিফোর হয়ে ফিরে যান তিনি। এর আগে ৭৩ বলে খেলেন ৭৫ রানের ইনিংস। ৯টি বাউন্ডারির সঙ্গে মেরেছেন ১টি ছক্কার মারও।

এরপর শন উইলিয়ামস আর সিকান্দার রাজা মিলে ৪১ রানের জুটি গড়ে আবারও বাংলাদেশের সামনে বিপজ্জনক হয়ে ওঠে। হাফ সেঞ্চুরির সামনে দাঁড়িয়েছিলেন শন উইলিয়ামস। শেষ পর্যন্ত মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের বলে উইকেটের পেছনে মুশফিকের হাতে ক্যাচ তুলে দেন উইলিয়ামস। তার আগে ৭৬ বলে খেলেন ৪৭ রানের ইনিংস।

এরপরই চেপে ধরে টাইগাররা। মুস্তাফিজ-সাইফুদ্দিনের দূর্দান্ত বোলিংয়ে অল্পতেই জিম্বাবুয়েকে আটকে দিয়েছে বাংলাদেশ। একসময় টার্গেটটা হয়তো ২৮০+ হতো কিন্তু তেমনটা আর হল না। ২৪৬ রানেই শেষ হয় তাদের ইনিংস। জয়ের জন্য বাংলাদেশের টার্গেট ২৪৭ রান।

এর আগে শুরুর স্পেলটা ঠিক মনের মতো করতে পারেননি অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। যে কারণে মাত্র দুই ওভার করেই ডেকে নেন অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনকে। বোলিংয়ে এসে প্রথম ওভারেই আঘাত হানেন এ ডানহাতি পেস বোলিং অলরাউন্ডার।

জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে ইনিংসের পঞ্চম ওভারের পঞ্চম বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচে পরিণত করেন সাইফউদ্দিন। অফস্টাম্পের বাইরে পড়ে হালকা সুইংয়ে বেরিয়ে যাওয়া ডেলিভারিতে ড্রাইভ করতে গিয়ে মুশফিকুর রহিমের হাতে ধরা পড়েন জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক। আউট হওয়ার আগে ২ চারের মারে ১৮ বলে ১৪ রান করেন মাসাকাদজা।

শুরুতেই অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজার উইকেট হারালেও চাপ সামলে উঠছিল সফরকারী জিম্বাবুয়ে। দ্বিতীয় উইকেটে স্বাছন্দ্যেই রান তুলছিলেন ওপেনার সেফাস ঝুয়াও এবং অভিজ্ঞ ব্রেন্ডন টেলর। তবে নিজের দ্বিতীয় ওভারেই ঝুয়াওকে ফিরিয়ে দিয়ে জুটি ভেঙেছেন অফস্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ।

পঞ্চম ওভারেই মাসাকাদজার বিদায়ের পরে মাত্র ৪৩ বলে ৫২ রানের জুটি গড়ে ফেলেছিলেন ঝুয়াও এবং টেলর। দশম ওভারে বোলিং করতে এসে নিজের প্রথম ওভারে ১১ রান খরচ করে ফেলেন মিরাজ। দ্বিতীয় ওভারের ৫ বলেও দিয়ে ফেলেন সমান ১১ রান। তবে ওভারের শেষ বলেই কাজের কাজটি করে দেন এ তরুণ অফস্পিনার।

আগের বলেই সুইপ শটে বাউন্ডারি মারার পরের বলে বোলারের মাথার উপর দিয়ে ছক্কা মারতে চেয়েছিলেন ঝুয়াও। কিন্তু টাইমিংয়ে গড়বড় করে ফেলায় ধরা পড়েন লংঅ

আরও পড়ুন

হ্যামিল্টন মাসাকাদজা অাউট। জিম্বাবুয়ের তৃতীয় উইকেটের পতন

হ্যাটট্রিক করে বিশ্বকাপের মিশন শুরু করলেন মেসি। দেখুন আজকের ম্যাচে মেসির হ্যাটট্রিকের ভিডিও

হ্যাটট্রিক করলো চেলসি

Syed Hasibul