Notunshokal.com
খেলাধুলা

বিপিএলে সুযোগ পেয়ে যা বললেন মোহাম্মদ আশরাফুল

দীর্ঘদিন পর আবারো বিপিএল এর জার্সি পড়তে যাচ্ছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের একসময়ের পোস্টার বয় খ্যাত মোহাম্মদ আশরাফুল।নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আবারো বিপিএল মাতাবেন তিনি।বিপিএলে সেঞ্চুরি করা এই কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান কে দলে ভিড়িয়েছেন চিটাগাং ভাইকিংস। যদিও প্লেয়ার ড্রাফটের আগে সিলেট সিক্সার্সের সঙ্গে কথা হচ্ছিল আশরাফুলের।

তবে তারকাসমৃদ্ধ কোনো দলেও খেলতে চাননি সদ্য নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরা আশরাফুল। তার ভাষ্য, ‘ব্যক্তিগতভাবে আমি চিটাগং ভাইকিংসে সুযোগের আশা করছিলাম। আর উনারাই আমাকে সিলেক্ট করছে। সিলেটের সাথে কথা হচ্ছিল। ওদের ম্যানেজার আমাকে ছোটবেলা থেকেই চেনে। ওভাবেই তার সাথে কথা হইছিল। যদি সুযোগ হয়, তাহলে উনারা আমাকে ডাকবে বলেছিল। তার আগেই যদি অন্য কেউ ডাকে, তাহলে তো হয়েই গেল।’

চিটাগংয়ের জার্সি গায়ে খেলতে চাওয়ার কারণ জানিয়ে আশরাফুল বলেন, ‘চিটাগং প্রথম আসর থেকে অনেক শক্তিশালী দল গড়ছিল; তামিম ইকবাল যখন ছিল। তামিম চলে যাওয়ার পরে ওরা আসলে মিডিয়াম একটা দল গড়ে। আর এই মুহূর্তে আমি যেটা মনে করি, আমার যত বেশি সুযোগ হবে খেলার।’

‘সেখানে আমার খেলার বেশি সুযোগ থাকবে। যেহেতু আমি টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান, যদি সুযোগ পাই, তাহলে আমি পারফর্ম করার সুযোগটা পাব। এ জন্যই আমার টার্গেট ছিল চিটাগং ভাইকিংস।’

তিন আসর পর বিপিএলে খেলার অপেক্ষায় থাকা আশরাফুলের মূল লক্ষ্য আবারও জাতীয় দলের জার্সি গায়ে জড়ানো। শুধু তাই নয়, ২০১৯ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপে খেলার স্বপ্ন দেখছেন তিনি। এ জন্য যে পারফর্ম করতে, সেটাও তার অজানা নয়। পারফর্ম করার জন্য বিপিএলকে ভালো প্লাটফর্ম মনে করছেন ডানহাতি এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান।

তার ভাষ্য, ‘শেষ দুইটা বছর তো ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলতাম। কিন্তু বিপিএলে একটা বাধা ছিল। সেটা উঠে গেছে। এখন একটা দল পাওয়া দরকার ছিল। আমি ভাগ্যবান যে, চিটাগং ভাইকিংস আমাকে সিলেক্ট করছে। চেষ্টা করব আমার সেরাটা দিয়েই খেলার। আমার লক্ষ্য যেহেতু আবারও জাতীয় দলে খেলার, সে জন্য আমার একটা প্ল্যাটফর্ম দরকার ছিল। আমি মনে করছি, বিপিএল সেই প্ল্যাটফর্ম। আন্তর্জাতিক ম্যাচের পরের ধাপই হলো বিপিএল।’

বিপিএলে দল নিয়ে আশরাফুলের মূল লক্ষ্য শেষ চারের টিকেট নিশ্চিত করা। একই সঙ্গে ব্যাটে-বলে পারফর্ম করে অবদান রাখতে চান দলের জয়ে। ম্যাচ জয়ী ইনিংস খেলে আসতে চান পাদপ্রদীপের আলোয়, কাড়তে চান নির্বাচকদের নজর।

‘আমার প্রথম লক্ষ্য শেষ চারে যেন আমরা খেলতে পারি। দলের চার-পাঁচটা ম্যাচ যেন জিতাতে পারি। যে ম্যাচগুলো আমরা জিতব, সেখানে যেন অবদান রাখতে পারি’, বলেন আশরাফুল।

দলের ক্রিকেটাররা পারফর্ম করতে পারলে বিপিএলে চিটাগংয়ের সুযোগ দেখছেন আশরাফুল। এ নিয়ে তার ভাষ্য, ‘টি-টোয়েন্টিতে আসলে যত শক্তিশালী দলই হোক, এখানে কেউ ফেবারিট না। যারা ভালো ক্রিকেটে খেলবে, তাদের সম্ভাবনা আছে। আমি ঠিক জানি না, বাজেটের দিক থেকে আমাদের দল কয় নম্বরে আছে। কিন্তু আমি মনে করি, এই ফরম্যাটে যেহেতু কোনো দল ফেবারিট না, আমরা যারা আছি পারফর্ম করলে আমাদের সুযোগ আছে।’

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফিরে ইতোমধ্যে ‘এ’ দলের হয়ে ম্যাচে খেলেছেন আশরাফুল। খেলছেন চলমান জাতীয় ক্রিকেট লিগে (এনসিএল)। কিন্তু সেখানে ব্যাটে-বলে সেভাবে নজর কাড়তে পারেননি আবারও জাতীয় দলের জার্সি গায়ে জড়ানোর স্বপ্নে বিভোর আশরাফুল। চার রাউন্ডে মিলিয়ে করেছেন ১৫৩ রান। হাফ সেঞ্চুরি রয়েছে মাত্র একটি। আরেকটিতে হাফ সেঞ্চুরি থেকে বঞ্চিত হয়েছেন মাত্র ১ রানের জন্য। এ ছাড়া বল হাতে নিয়েছেন ৮ উইকেট।

জাতীয় লিগের হয়ে আহামরি কোনো পারফরম্যান্স দেখাতে না পারলেও বিপিএলে এর প্রভাব পড়বে না বলেই জানিয়েছেন আশরাফুল। এ নিয়ে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই না। জাতীয় লিগ চারদিনের খেলা। বিপিএল হলো টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট।

জাতীয় লিগের প্রথম দুইটা ম্যাচে ব্যাটিং-বোলিং দুইটাতেই অবদান রাখতে পারছিলাম। শেষ দুইটা ম্যাচে ব্যাটিং অতটা ভালো হয় নাই। এখানে এখনো দুইটা ম্যাচ বাকি আছে। আশা করি, ওই দুইটা ম্যাচে বড় ইনিংস খেলে দেব ইনশাআল্লাহ।’

আরও পড়ুন

হ্যামিল্টন মাসাকাদজা অাউট। জিম্বাবুয়ের তৃতীয় উইকেটের পতন

হ্যাটট্রিক করে বিশ্বকাপের মিশন শুরু করলেন মেসি। দেখুন আজকের ম্যাচে মেসির হ্যাটট্রিকের ভিডিও

হ্যাটট্রিক করলো চেলসি

Syed Hasibul