Notunshokal.com
জাতীয়

চালু হল গোপালগঞ্জ-রাজশাহী ট্রেন চলাচল

দেশের দক্ষিণাঞ্চলের সঙ্গে পশ্চিমাঞ্চলের ট্রেন যোগাযোগ চালু হয়েছে।
আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে গোপালগঞ্জ-রাজশাহী রুটে ‘টুঙ্গীপাড়া এক্সপ্রেস’ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

উদ্বোধনের পরই দক্ষিণাঞ্চল থেকে পশ্চিমাঞ্চলের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় ট্রেনটি।

জানা গেছে, ব্রিটিশ শাসনামলে নির্মিত রাজবাড়ির কালুখালী থেকে গোপালগঞ্জের ভাটিয়াপাড়া রেলপথে ১৯৯৭ সালের ১৯ আগস্ট ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়। এরপর কাশিয়ানী-গোপালগঞ্জ-টুঙ্গীপাড়া নতুন রেললাইন প্রকল্প ২০১১ সালে পুনরুদ্ধার কাজ শুরু হয়। ২০১৩ সালের ২ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কালুখালী-ভাটিয়াপাড়া রেলরুটে ৩২০ কোটি ৮৫ লাখ টাকা ব্যয়ে রেলপথ উদ্বোধন করেন।

পরে কাশিয়ানী থেকে গোবরা পর্যন্ত রেললাইনে ২০১৫ সালের নভেম্বরে নির্মাণকাজ শুরু হওয়ার পর চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে শেষ হয় এ রেলপথের কাজ। ২৫৮ কোটি টাকা ব্যয়ে গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী থেকে গোবরা পর্যন্ত ৪৪ কিলোমিটার দীর্ঘ এ রেললাইনটির নির্মাণকাজ শেষ হয়। উদ্বোধনের পর রাজশাহী-গোপালগঞ্জ রুটে নিয়মিত ট্রেন চলবে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা (ডিটিও) আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, ৭৮৩ নম্বর টুঙ্গীপাড়া এক্সপ্রেস ট্রেনটি গোপালগঞ্জ থেকে রাজশাহী পৌঁছাতে সময় লাগবে প্রায় ছয় ঘণ্টা ৫০ মিনিট।

শোভন ও শোভন চেয়ারে ৬৪৮ জন যাত্রী, আটটি কোচ সর্বমোট ১৬টি বগি দিয়ে দুটি ট্রেন রাজশাহী-গোপালগঞ্জ-রাজশাহী রুটে নিয়মিত ট্রেন চলাচল করবে।
বৃহস্পতিবার ৭৮৩ নম্বর টুঙ্গীপাড়া এক্সপ্রেস ট্রেনটি গোপালগঞ্জ থেকে সকাল ১০টায় ছেড়ে ছোট বহিরাবাগ, কাসিয়ানী, বোয়ালমারী বাজার, মধুখালী জং, কালুখালী জং, কুমারখালী, কুষ্টিয়া, পোড়াদহ, ভেড়ামারা, ঈশ্বরদী জংশন হয়ে রাজশাহী পৌঁছাবে।

পরদিন ৭৮৪ নম্বর টুঙ্গীপাড়া এক্সপ্রেস রাজশাহী থেকে ছেড়ে ঈশ্বরদী জংশন, ভেড়ামারা, পোড়াদহ, কুষ্টিয়া, কুমারখালী জং, মধুখালী জং, বোয়ালমারী বাজার, কাসিয়ানী, ছোট বহিরাবাগ, গোপালগঞ্জ পৌঁছাবে।

৭৮৩ নম্বর রাজশাহী-গোবরাগামী ট্রেনটি সপ্তাহে মঙ্গলবার, গোবরা-রাজশাহীগামী ৭৮৪ নম্বর ট্রেনটি সপ্তাহে সোমবার বন্ধ থেকে বাকি দিনগুলোতে চলাচল করবে। বৃহস্পতিবার রাজশাহী পৌঁছানোর পরই সময়সূচি ঠিক করা হবে। ২ নভেম্বর থেকে নিয়মিত চলাচল করবে টুঙ্গীপাড়া এক্সপ্রেস।

আরও পড়ুন

হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচলেন ফরিদুর রেজা সাগর-ব্রাউনিয়া

Sheikh Anik

হঠাৎ কেঁপে উঠলো রাজধানীসহ গোটা দেশ

Syed Hasibul

স্বাধীনতার ৪৭ বছর পরেও ঢাকার রাস্তায় ইমার্জেন্সি লেন কেউ কল্পনাও করতে পারেনি

Syed Hasibul