জাতীয়

নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে খালেদা জিয়ার জন্য জামিনের সিদ্ধান্ত

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খালেদা জিয়া যেন অংশগ্রহণ করতে পারেন সেই জন্য বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে দেয়া সাজার বিরুদ্ধে আপিল এবং জামিন চাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। গতকাল মঙ্গলবার রাতে বিএনপির চেয়ারপার্সনের গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠকে বিএনপির শীর্ষ নেতা ও আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন।

এক সুত্রে জানা যায়, খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি আইনিভাবে মোকাবেলার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আগামী একাদশ নির্বাচনে দলের এ প্রধান যেন অংশ নিতে পারেন সে লক্ষ্যেই এই আইনি সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গতকাল বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বিএনপি চেয়ারপার্সনের আনজীবী অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সনকে মোট ১৭ বছরের সাজা দেয় পৃথক আদালত। যার ফলে তার নির্বাচনে অংশগ্রহণ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

তিনি আরও বলেন সাজার বিরুদ্ধে আমরা আইনগত দিক নিয়ে আলোচনা করেছি। বৈঠকে সাজার বিরুদ্ধে আপিল ও জামিন চাওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়। তাছাড়া ম্যাডামের বিরুদ্ধে থাকা অন্যান্য মামলার বিষয়েও আলোচনা হয়েছে। আসলে এটি আমাদের নিয়মিত দায়িত্ব, সেটাই পালন করছি। তাছাড়া আগামী নির্বাচনে খালেদা জিয়া যেন অংশগ্রহণ করতে পারেন সেই লক্ষ্যেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।