জাতীয় রাজনীতি

আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের সাথে যে তিন বিষয় নিয়ে বৈঠক করলেন প্রধানমন্ত্রী

আগামী ৩০ ডিসেম্বর শুরু হচ্ছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এদিকে আওয়ামী লীগ এবার বিদ্রোহী প্রার্থীদের ব্যাপারে কঠোর অবস্থান গ্রহন করলেও এ পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী প্রায় ৭৯ জন আওয়ামী লীগ নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। আওয়ামী লীগের জন্য এটা একটি বড় মাথাব্যাথার কারণ হয়ে দাড়িয়েছে।

এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল সুত্র বলছে, আওয়ামী লীগ আগামী ২ ডিসেম্বর মনোনয়পত্র বাছাইয়ের পর দেখতে চান কতজন বিদ্রোহী প্রার্থী টিকে থাকলো। যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে যাবে, তাদের বাদ দিয়ে যাদের মনোনয়ন টিকবে, তাদেরকে ২ থেকে ৮ ডিসেম্বরের মধ্যে ঢাকায় তলব করা হবে। তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী মূলত ৩ টি বিষয় নিয়ে কথা বলবেন।

এর মধ্যে প্রথমত, তাদেরকে বলা হবে। তারা যদি অবিলম্বে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে। যে প্রার্থীকে আওয়ামী লীগ মনোনয়ন দিয়েছে। তাদের পক্ষে যদি কাজ করে। তাদের জন্য পুরস্কারের ব্যবস্থা করা হবে। ভবিষ্যতে তাদের সাংগঠনিক তৎপরতায় সম্পৃক্ত করা হবে।

এরপর দ্বিতীয়ত তাদেরকে বলা হবে, তারা যদি প্রার্থীতা প্রত্যাহার না করে। প্রার্থীতা প্রত্যাহারের পাশাপাশি যদি নৌকা প্রতীকে প্রার্থীদের পক্ষে কাজ না করে। তাদের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এরপর তৃতীয় বিষয়টি হচ্ছে তারা যদি শেষ পর্যন্ত নির্বাচনী দৌঁড়ে থাকে। তাহলে স্থানীয় আওয়ামী লীগ থেকে তারা আক্রমনের লক্ষ্যবস্তুতে পরিনত হবে। এদিকে জানা গেছে এই সমস্ত বিষয় নিয়ে আওয়ামী লীগের হাই কমান্ড বসবে। ইতিমধ্যে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সমস্ত বিদ্রোহী প্রার্থীদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। তাদেরকে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।