রাজনীতি

অবশেষে দীর্ঘ ১০ বছর পর দুইদিন আগে কচুয়া উপজেলা বিএনপির কার্যালয়টির তালা খোলা হয়েছে

অবশেষে দীর্ঘ ১০ বছর পর দুইদিন আগে কচুয়া উপজেলা বিএনপির কার্যালয়টির তালা খোলা হয়েছে। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের ঊর্ধ্বতন নেতাদের নির্দেশে অফিসটি খোলার পর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়। এ সময় কচুয়া পৌর বাজারের প্রধান সড়কে উপজেলা জাতীয়তাবাদী দল ও অঙ্গ-সংগঠনের প্রধান এ কার্যালয়টি অবস্থিত।

জানা যায় সংসদীয় এ আসনটিতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে বিএনপি কোণঠাসা, আবার বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে আওয়ামী লীগ কোণঠাসা অবস্থায় থাকে। এ ব্যাপারে স্থানীয় এক নেতা জানান, গত ২০০৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর বিএনপির অফিসটি বন্ধ হয়ে যায়। তবে এখন অফিসটি চালু করায় স্থানীয় নেতা-কর্মীদের মাঝে চরম উৎসাহ-উদ্দীপনা বিরাজ করছে।

এসময় কচুয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি হুমায়ন কবির বলেন, ‘সামনে নির্বাচন। তাই দলীয় কার্যালয়টি খোলা হয়েছে। এতদিন কার্যালয়ের বাইরে দলীয় কার্যক্রম ও কর্মসূচি পালন করেছি। এখন থেকে কার্যালয়টি ব্যবহার করে দলীয় নেতা-কর্মীদের মাঝে উৎসাহ দেয়া যাবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এই আসনে এখনও বিএনপির দলীয় মনোনয়নপ্রাপ্ত প্রার্থী নিশ্চিত হয়নি। তিনজন মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছে। দলের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ যাকে মনোনয়ন দেবে, আমরা তার পক্ষে ধানের শীষ প্রতীকে কাজ করব।’

এদিকে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে চাঁদপুর-১ কচুয়া নির্বাচনী আসনে বিএনপি থেকে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন ৩ জন প্রার্থী। তারা হলেন সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপি নেতা আ ন ম এহসানুল হক মিলন, তার স্ত্রী নাজমুন নাহার বেবী এবং প্রবাসী বিএনপি নেতা মোশারফ হোসেন।

আরও পড়ুন

হেলমেট পরিহিত সেই যুবক আটক

হিরো আলমের মনোনয়নপত্র আপিলেও বাতিল

Syed Hasibul

হিরো আলমের নির্বাচন করতে আর কোন বাধা থাকল না

Syed Hasibul