জাতীয়

যেভাবে গর্ভবতী নারীর সন্তান জন্মের তারিখ নির্ধারণ করবেন

নারীদের প্রসব তারিখ নিয়ে কিছু দ্বিধাদ্বন্দ্ব কাজ করে। মাসিক অনুযায়ী একটা তারিখ পড়ে। প্রথম আলট্রাসনোগ্রামে একটা তারিখ আসে। এরপর যতোবার আলট্রাসনোগ্রাম করে ততোবারই নতুন করে একটা তারিখ আসে।

যদি তার শেষ পিরিয়ডের তারিখ ঠিক থাকে অর্থাৎ মা যদি সঠিক ভাবে বলতে পারেন, আমার অমুক মাসের অমুক তারিখে শেষ পিরিয়ড হয়েছিল এবং তার আগে নিয়মিত পিরিয়ড ছিল। পিরিয়ড অনিয়মিত ছিল না। এমনক্ষেত্রে আমরা মাসিকের তারিখটাকে ধরি। এই তারিখের সঙ্গে নয়মাস সাতদিন যোগ করে যে তারিখটা পাই, সেই তারিখটাকে তার প্রসব তারিখ হিসেবে ঠিক করি।

যদি এমন হয় কোন মায়ের পিরিয়ড অনিয়মিত ছিল, দেড়- দু`মাস পরপর পিরিয়ড হতো, কিংবা পিরিয়ড বন্ধ থাকতো, সেক্ষেত্রে সে তার শেষ পিরিয়ডের তারিখটা ভুলে গেছে বা বলতে পারছে না-এমন ক্ষেত্রে আমরা প্রসব তারিখ কীভাবে নির্ধারণ করব? এক্ষেত্রে প্রসব তারিখ নির্ধারণের সহজ উপায় হচ্ছে প্রথম তিনমাসের মধ্যে একটা আলট্রাসনোগ্রাম করা। এই আলট্রাসনোগ্রামে যে তারিখটা আসে সেই তারিখটাকে আমরা তখন ঠিক ধরি।

পরবর্তীতে গর্ভকালীন সময়ের পাঁচ বা ছ`মাসের সময় আলট্রাসনোগ্রাম করলে বা আট মাসের সময় আলট্রাসনোগ্রাম করে তখন আগের তারিখের সঙ্গে এক বা দু`সপ্তাহ এদিক সেদিক হয়। যদি দেখি প্রথম আলট্রাসনোগ্রামের তারিখের সাথে দ্বিতীয় বা তৃতীয় আলট্রাসনোগ্রামের তারিখের এক থেকে দু`সপ্তাহ এদিক সেদিক সেক্ষেত্রে আমরা প্রথম আলট্রাসনোগ্রামের তারিখটাকে সঠিক ধরে থাকি।
লেখক: ডা. কাজী ফয়েজা আক্তার (এমবিবিএস, এফসিপিএস, এমসিপিএস)।