এক্সক্লুসিভ

৪ কুকুরের ভালোবাসা,হাসপাতালে ভর্তি হওয়া বন্ধুর জন্য

সান্তা ক্যাটারিনার হসপিটাল রিজিওনাল অল্টো ভ্যালেতে ভীষণ অসুস্থতা নিয়ে ভর্তি হন সিজার নামে এক তরুণ। কিন্তু তাকে দেখার কেউ নেই। তবে ওই তরুণ হসপিটালে ভর্তির সময় থেকে তার চারটি কুকুর অপেক্ষা করছিল বন্ধু সিজারের জন্য।

মলিন চেহারা নিয়ে হাসপাতালের দরজার সামনে ঠাঁই দাঁড়িয়ে কুকুরগুলো। খাওয়া দাওয়া দিকে তাদের কোনোই খেয়াল নেই। অপেক্ষা শুধু কখন সুস্থ হয়ে উঠবে তাদের প্রিয় মানুষটি। নির্বাক নয়নে তাদের একটাই প্রত্যাশা।

সম্প্রতি এই ঘটনাটি ঘটেছে ব্রাজিলের রিজিওনাল অল্টো ভ্যালেতে। এই ঘটনাটির ছবি ফেসবুকে দিয়ে এমনটিই জানিয়েছেন হাসপাতালের নার্স ক্রিস ম্যামপ্রিম।

ক্রিস জানান, সিজারে জন্য রাত ৪টা অবধি কুকুরগুলো হাসপাতালের দরজা থেকে এক চুলও সরেনি। ভোরবেলায় কুকুরগুলো তাদের বন্ধুর সুস্থতার বিষয়টি নিশ্চিত করেই সেই হাসপাতালের দরজা ছেড়ে চলে যায়।

কুকুরগুলোর ভদ্রতার কথাও উল্লেখ নার্স ক্রিস জানান, ভোরে কিছুটা সুস্থ হন সিজার। এর পর তার কাছে কুকুরগুলোকে নিয়ে যাই। এদের ভদ্রতা যেন মানুষতুল্য। কিছু ক্ষেত্রে তার চেয়েও বেশি। যতক্ষণ না পর্যন্ত তাদের ভেতরে ঢুকতে অনুমতি দেয়া হয়েছে, ‘বন্ধুর’ অপেক্ষায় বাইরে চুপটি করে বসেছিল তারা।

এদিকে, বন্ধুর জন্য কুকুরগুলোর এমন ভালোবাসা দেখে অবাক হয়েছেন হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্সসহ কর্মীরা। পরে হাসপাতল কর্তৃপক্ষ সিজার ও কুকুরগুলোকে খাবার দেয়া হয়। ‘বন্ধুর’ সুস্থতার ট্রিট পেয়ে কুকুরগুলোও ভীষণ খুশি হয়।

সিজার সম্পর্কে জানা গেছে সে একজন ভবঘুরে বা ছিন্নমূল। ফুটপাতেই কাটে তার জীবন। খাবার জুটলে খায় না পেলে অনাহারেই কাটে তার দিন। তবে খাবার পেলে তা ওই চার কুকুরের সঙ্গে ভাগাভাগি করেই খান তিনি। ফলে এই কুকুরগুলোই সিজারের পরম আত্মীয়। সুখে-দুঃখে সবসময়ের সঙ্গী। সিজার অসুস্থ হয়ে পড়লে কুকুরদের তৎপরতায় নাকি পথচারীরা সিজারকে এই হাসপাতালে ভর্তি করেন।