রাজনীতি

নায়ক ফারুক ঋণখেলাপির অভিযোগে ক্ষোভ প্রকাশ করে যা বললেন

আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এদিকে আজ সোমবার ২৫ ডিসেম্বর চিত্রনায়ক ফারুকের মনোনয়নপত্র বাতিলের জন্য ঋণখেলাপির অভিযোগ তুলে হাইকোর্টে রিট করেছেন বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও ঢাকা-১৭ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ।

এদিকে ঋণখেলাপি প্রসঙ্গে গণমাধ্যমকে নায়ক ফারুক বলেন, ‘এত সহজ নাকি রিট হওয়া, আমি ঋণখেলাপি নাকি? আমার কাছে সব কাগজপত্র আছে। কিছু দুষ্টুবিদ এগুলো শুরু করে এগিয়ে যেতে পারবে না। মানুষের মন জয় করতে পারবে না। আমি যদি ঋণ খেলাপি হই, তাহলে কিভাবে নির্বাচন করি? নির্বাচন কমিশন কি আকাশ থেকে পড়েছে?’

আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় বনানীতে তার পার্টি অফিসে এভাবেই ক্ষোভ জানিয়েছেন নৌকার প্রার্থী চিত্রনায়ক ফারুক। এ সময় ফারুক বলেন, ‘আমি ঋণখেলাপি না। কখনও ছিলাম না, এখনও নেই। শত্রুতা ও ষড়যন্ত্র করে আমাকে দমানো যায় কিনা এটা দেখা হচ্ছে। এটা করছে অপশক্তি। এই অপশক্তি গোটা দেশটাকে ডুবিয়ে দিতে চায়। জাতিকে এই অপশক্তি বিভ্রান্ত করতে চাচ্ছে। আমার জনগণ জানে কে ভালো কে মন্দ।’

এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘নেত্রী শেখ হাসিনা স্পষ্টভাবে আমাকে বলে দিয়েছেন, ১৮ বছর এই এলাকায় (ঢাকা-১৭ আসন, গুলশান, বনানী, ভাষানটেক, ক্যান্টমেন্ট) নৌকার মাঝি ছিল না। তুই হবি এখানকার নৌকার মাঝি। প্রতিটি মানুষকে নৌকা দিয়ে পার করবি তুই। নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদী।’

তিনি বলেন, ‘আমার ঢাকা-১৭ আসনে প্রতিটি মানুষের মুখে যেন হাসি থাকে, মানুষ যেন ভালো থাকে সেই প্রচেষ্টা নিয়ে নতুন বছর শুরু করবো ইনশাল্লাহ। এজন্য দেশের প্রতিটি মানুষের কাছে আমি দোয়া চাই।’