রাজনীতি

মাশরাফি,শ্বশুর বাড়ি এলাকায় স্ত্রীকে নিয়ে ভোট চাইলেন

আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এদিকে একাদশ নির্বাচন সামনে রেখে সারাদেশে শুরু হয়েগেছে নির্বাচনী প্রচারণা। এদিকে নড়াইল-২ আসন থেকে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দেশের প্রাচীনতম দল আওয়ামী লীগ থেকে প্রতিদ্বন্দিতা করবেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ইতোমধ্যে নিজ এলাকায় নির্বাচনের প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন তিনি। এদিকে আজ মাশরাফির স্ত্রী, সুমি তার নিজের গ্রাম মানে মাশরাফির শ্বশুরবাড়ির এলাকায় নৌকা মার্কায় ভোট চাইলেন।

আজ সোমবার ২৪ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় সবুজ পাঞ্জাবি, কালো চাদর গায়ে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন মাশরাফি। হাজার হাজার কর্মীর সাথে প্রায় তিনশ’ মোটর সাইকেলের বহরও ছিল। ছিল বেশ কিছু গাড়ি। যেখানে ছিলো আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের কর্মীরা। ফুলের মালা দিয়ে মাশরাফিকে বরণ করে নেন তারা।

এদিকে এখন পর্যন্ত ১৩টি নির্বাচনী পথ সভায় বক্তব্য রেখেছেন মাশরাফি। এসময় রাস্তার মোড়ে মোড়ে ভিড় ছিলো সহস্র মানুষের। নারী, পুরুষ, শিশু, বৃদ্ধ, তরুণ-তরুণীর উপস্থিতি ছিল সর্বত্র। দেশ সেরা তারকাকে এক পলক দেখতে উন্মুখ ছিল সবাই। এসময় বিভিন্ন পথসভায় বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন মাশরাফি।

এ সময় মাশরাফি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত যে কয়টি পথসভা করেছি, রাজনৈতিক কথা বলিনি। বলতেও চাই না। খেলোয়াড় সুলভ মানসিকতা নিয়েই আপনাদের এখানে এসেছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে একটি সুযোগ দিয়েছেন। আমাকে নৌকা প্রতীক দিয়ে আপনাদের কাছে পাঠিয়েছেন। আপনাদের সহযোগিতায় সুন্দর, সমৃদ্ধ নড়াইল গড়ে তুলতে চাই, ইনশাল্লাহ।’

আজ ১৩টি পথসভার মধ্যে মাশরাফির শ্বশুর বাড়ির এলাকাও ছিল। লোহাগড়ার ছত্রহাজারীর মিতালী স্কুল মাঠের পথসভাটি ছিল তার শ্বশুর বাড়ির এলাকা। এই পথসভায় মাশরাফির পাশেই ছিলেন তার স্ত্রী সুমনা হক সুমি। তাই একটু অন্যভাবেই এখানে মাশরাফিকে বরণ করে নেয়া হয়। ফুলের সাথে জনৈক সঞ্চালক গানের সুরে মাশরাফিকে বরণ করেন। গান শেষে ওই সঞ্চালক রসিকতার সুরে বলেন, ‘এখন কোনো স্লোগান হবে না। এখন সবাই নিজের মতো করে ছবি তুলেন, সেলফি তুলেন। আমাদের জামাই এসেছে।’

এ সময় বক্তব্য দিয়েছেন মাশরাফির স্ত্রী, তিনি বলেন, ‘আমি আপনাদের এলাকার মেয়ে। মাশরাফিও আপনাদের এলাকার জামাই। আমি আজ নৌকা মার্কায় ভোট চাইতে আসছি। তবে এভাবে ভোট চাইতে আসতে হবে কখনো কল্পনা করি নাই। আপনারা মাশরাফিকে খুব বেশি পছন্দ করেন। তাকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবেন।’