রাজনীতি

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন,সিদ্ধান্ত এখন জনগণের হাতে

আজ মঙ্গলবার ২৫ ডিসেম্বর রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদাসহ অন্য কমিশনারদের সঙ্গে বৈঠক শেষে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘ঢাকা- সরকার ও নির্বাচন কমিশন (ইসি) মিলে নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করছে। এমতাবস্থায় সিদ্ধান্ত এখন জনগণের হাতে। এ সময় বৈঠকে ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খানসহ ১০ নেতা অংশ নেন।

এদিকে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীদের ওপর হামলা, ব্যানার-পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা, মিথ্যা গায়েবি মামলায় গ্রেপ্তারের অভিযোগ নিয়ে ইসিতে গিয়েছিলেন ড. কামালের নেতৃত্বে প্রতিনিধিদলটি। কিন্তু বিষয়গুলো সিইসি গুরুত্ব দেয়নি বলে মনে করছেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। এর জন্য বৈঠক বয়কট করে চলে আসে ঐক্যফ্রন্ট।

এদিকে বৈঠক শেষে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের যে গ্রেপ্তার, আক্রমণ, আহত করা হচ্ছে, হত্যা করা হচ্ছে এবং নির্বাচনের পরিবেশ যে সম্পূর্ণভাবে বিনষ্ট করা হচ্ছে সেই বিষয়গুলো নিয়ে তাকে জানাতে এসেছিলাম। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে প্রধান নির্বাচন কর্মকর্তার কাছ থেকে আমরা সেই ধরনের কোনো আচরণ পাইনি যে তিনি এটাতে গুরুত্ব দিচ্ছেন। ’

তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন এবং সরকার যৌথভাবে এই নির্বাচনকে প্রহসনে পরিণত করেছে। এখন জনগণ সিদ্ধান্ত নেবেন তারা পরবর্তীতে কি করবেন।’

এ সময় তিনি বলেন, ‘দেশের বিভিন্ন জায়গায় প্রার্থীদের ওপর হামলায় নানা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। সে ক্ষেত্রে এই নির্বাচন কতটুকু সুষ্ঠু হবে। কতটুকু অবাধ ও গ্রহণযোগ্য হবে এ প্রশ্ন ইতিমধ্যেই জাতির সামনে এসেছে।’