রাজনীতি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদায় বেলায় আবেগাপ্লুত হয়ে যা বললেন

আজ বৃহস্পতিবার ২৭ ডিসেম্বর দুপুরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সরকারের মেয়াদের শেষ কর্মদিবসে কার্যালয়ের সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রিত্ব নয়, জাতির পিতার কন্যা হিসেবেই বেশি গর্ববোধ করি। এই পদটাকে কীভাবে উপভোগ করব সেই চিন্তা করি না, মানুষের কল্যাণে নিজেকে কতটুকু নিয়োজিত করতে পারলাম আমার কাছে সেটাই বিবেচ্য।’

তাছাড়া বিদায় বেলায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়কে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ আখ্যায়িত করে তিনি সরকারি কর্মচারীদের তাদের দায়িত্বের কথাও স্মরণ করে দেন। এ সময় শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি থাকি বা না থাকি, আপনাদের কাছে আবেদন এটাই থাকবে, আপনারা আপনাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করবেন, কারণ আপনারা সরকারি কর্মচারী। আপনাদের বেতন-ভাতা বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের ট্যাক্সের টাকাতেই হয়। কাজেই তাদের সেবা করা, কল্যাণ করা, আপনাদের দায়িত্ব।’

এ সময় প্রধানমন্ত্রী আবেগাপ্লুত কণ্ঠে বলেন, ‘আমি কিন্তু নিজেকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে চিন্তা করি না। আমি জাতির পিতার কন্যা। আমি আপনাদের কাছে এটুকুই চাইব আপনারা সবসময় আমাকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের কন্যা হিসেবেই আপনাদের একান্ত আপনজন হিসেবে দেখবেন। সেটাতেই আমি গর্ববোধ করি, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রিত্ব, এটা একটা দায়িত্ব পেয়েছি। কাজ করার সুযোগ পাই এর মাধ্যমে। দেশের কল্যাণ করার একটা সুযোগ পাই। সেটাই আমার কাছে বড়।’

তিনি বলেন, ‘১০ বছর একটানা থাকায় অনেক কাজ করে যেতে পেরেছি। এখনও বহু কাজ বাকি। সেটাও নির্ভর করে বাংলাদেশের জনগণের ওপর। আগামী ৩০ তারিখে যদি তারা ভোট দেয় তাহলে আবার আসতে পারব এবং কাজগুলোকে শেষ করতে পারব।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আর তা না হলে মানুষের ভাগ্য মানুষ বেছে নেবে। এখানে আমার কোনো ক্ষোভ বা দুঃখ নেই। কেননা আমার নিজের জীবনে চাওয়া-পাওয়ার কিছু নেই।’

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি এ কথা সবসময় চিন্তা করি যে, আমার বাবা এদেশটাকে স্বাধীন করে দিয়ে গেছেন। তার মনে যে আকাঙ্ক্ষা ছিল মানুষকে নিয়ে, সেই আকাঙ্ক্ষা যেন আমি পূরণ করে যেতে পারি। যেন তার আত্মা শান্তি পায়- বাংলাদেশের মানুষ আজ আর কষ্টে নেই। তারা দুই বেলা পেট ভরে খেতে পারছে।’