জাতীয়

আগুন পোহাতে গিয়ে ৪ জনের মর্মান্তিক মৃত্যু চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২০ জন

রংপুর অঞ্চলে শীতের প্রকোপের কারণে খড়কুটো জ্বালিয়ে আগুন পোহাতে গিয়ে দগ্ধের ঘটনায় আরও দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দগ্ধের ঘটনায় গত পাঁচ দিনে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে এখনও চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২০ জন।

রবিবার (৬ জানুয়ারি) রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীর অবস্থায় মারা যান তারা।

রবিবার নিহত দুইজন হলেন, লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার বড় কমলাবাড়ি গ্রামের শাহাজাহান আলীর স্ত্রী শহিনা বেগম (২৩) এবং নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার খড়িবাড়ি গ্রামের নয়া মিয়ার ছেলে সাইমুল (১৮)।

এদিকে, রংপুর অঞ্চলে শৈত্য প্রবাহে জনজীবন পুরোপুরি অচল হয়ে পড়েছে। গত এক সপ্তাহ ধরে তাপমাত্রা কমে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে ওঠানামা করছে। এতে বিপাকে পড়েছে সহায় সম্বলহীন হতদরিদ্র পরিবারগুলো। তারা শীত বস্ত্রের অভাবে খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণ করার চেষ্টা করতে গিয়েই দুর্ঘটনার কবলে পড়ছে।

বিষয়টি নিয়ে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের বিভাগীয় প্রধান সহকারী অধ্যাপক ডা. মারুফুল ইসলাম বলেন, ‘শহরাঞ্চলের চেয়ে গ্রামাঞ্চলে শীতের তীব্রতা বেশি । হতদরিদ্র পরিবারগুলো শীত নিবারণ করতে আগুন তাপানোর কারণে দুর্ঘটনা ঘটছে।’

এসময় জরুরি ভিত্তিতে শীতবস্ত্র বিতরণ করার দাবি জানান তিনি।