আন্তর্জাতিক

পাকিস্তানের হামলা থেকে বাঁচতে ১৪ হাজার বাঙ্কার নির্মাণ করেছে ভারত

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতনিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় দেশটির আধাসামরিক বাহিনীর গাড়িবহরে হামলায় অন্তত ৪৪ সেনা নিহত হয়। আর এই আত্মঘাতী হামলার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠনজইশ-ই-মোহাম্মদ। ভারত এ হামলার পেছনে পাকিস্তানের মদদ রয়েছে বলে দাবি করে আসছে। তবে পাকিস্তার বরাবরই বিষয়টি অস্বীকার করে আসছে।

আর কাশ্মীর নিয়ে সীমান্তে উত্তেজনার জেরে লাহোর থেকে অমৃতসারগামী যাত্রীবাহী ট্রেন বন্ধ করে দিয়েছে পাকিস্তান। আজ বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টায় পাকিস্তানের লাহোর থেকে পাঞ্জাবের অমৃতসারের উদ্দেশ্যে ছাড়ার কথা ছিল সমঝোতা এক্সপ্রেসের। কিন্তু ট্রেনটি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান। ভারতের গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে ও পাকিস্তানের ডনের অলনাইন ভার্সনের এ খবর প্রকাশ করে।

এদিকে, পাকিস্তানের হামলা মোকাবেলায় সীমান্তে ১৪ হাজারেরও বেশি বাঙ্কার নির্মাণ করেছে ভারত। পাকিস্তান হামলা করলে ওইসব বাঙ্কারে সীমান্তবর্তী লোকজনকে এখানে আশ্রয় দেয়া হবে। পাকিস্তানের পরমাণু হামলার হুমকির মুখে বাঙ্কার নির্মাণকে ভারতের যুদ্ধপ্রস্তুতি হিসেবেই দেখা হচ্ছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স, ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি মেইল ও দ্য মিরর এ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

রয়টার্স ও অন্যান্য সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সীমান্তে উত্তেজনার মধ্যে ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরে ১৪ হাজার বাঙ্কার নির্মাণ করছে নয়াদিল্লী। পাকিস্তান হামলা করলে হতাহত হওয়া থেকে স্থানীয়দের রক্ষা করতে এসব বাঙ্কার নির্মাণ করা হচ্ছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, গত সপ্তাহ থেকেই বাঙ্কার নির্মাণের সিদ্ধান্তের কথা জানায় সরকার। ইতিমধ্যে বাঙ্কার নির্মাণের কাজও চলছে।দুই দেশের মধ্যে চলমান উত্তেজনা ও হামলার ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে তা কমাতেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।জম্মু কাশ্মীরে বাঙ্কার নির্মাণের ছবিও প্রকাশ করেছে রয়টার্স।

বিষয়টি নিয়ে পুনাচ জেলার ডেপুটি কমিশনার রাহুল যাবদ এ তথ্য নিশ্চিত করে রয়টার্সকে বলেন, পাকিস্তানের পক্ষ থেকে সীমান্ত এলাকায় গোলাবর্ষণ করা হচ্ছে।এতে সাধারণ মানুষের মধ্যে ভীত কাজ করছে।তাই পাকিস্তানের হামলা সত্ত্বেও যেন লোকজন ভীত হয়ে না পড়ে এবং ছোটাছুটি শুরু না করে সেজন্য এসব বাঙ্কার নির্মাণ করা হচ্ছে। সপ্তাহ খানেকের মধ্যে এসব বাঙ্কার নির্মাণের কাজ শেষ হবে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।