খেলাধুলা

বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে যে একাদশ নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ

বাংলাদেশকে ঐতিহাসিক শিরোপা জেতানোর পর এবার বিশ্বকাপ মিশনে নামতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। সেই মিশনে নামার জন্য আজই আয়ারল্যান্ড ছেড়ে ইংল্যান্ডের পথে পাড়ি জমাবে টাইগার ক্রিকেটাররা।

উইন্ডিজদের হারিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা জিতেছে মাশরাফি বিন মর্তুজার দল। ৬টি ফাইনালে হারার পর সপ্তম ফাইনালে এসে ক্যারিবিয়ানদের ৫ উইকেটে হারিয়েছে টাইগাররা।

এদিন বাংলাদেশের জয়ের নায়ক ছিলেন সৌম্য সরকার এবং মোসাদ্দেক হোসেন। এই দুজনের ফিফটিতেই ইতিহাসের পাতায় নাম লেখাতে সক্ষম হয়েছে লাল সবুজের দলটি। বিশ্বমঞ্চে ইতিহাস গড়ার দিন টুইটারে প্রশংসায় ভেসেছে বাংলাদেশ দল।

মাশরাফি বলেছিলেন, একটি শিরোপা বাংলাদেশের ক্রিকেটকে একধাপ এগিয়ে দিবে। অবশেষে প্রতিক্ষীত সেই শিরোপা ঘরে তুলল বাংলাদেশ। সাতবার ফাইনাল ফাইনাল খেলা বাংলাদেশ অবশেষে জিতল ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা। পুরো সিরিজে দুর্দন্ত খেলা টাইগারদের এদিন লড়তে হয়েছে শুধু উইন্ডিজের বিপক্ষেই নয়, আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল ম্যাচে উইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়ে প্রথমবারের মত কোনো পূর্ণ সদস্য দলের বিপক্ষে শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ জাতীয় দল।

নিজেদের ইতিহাসে এটি টাইগারদের দ্বিতীয় ত্রিদেশীয় সিরিজ জয় এবং টেস্ট খেলুড়ে দেশের বিপক্ষে প্রথম ফাইনাল জয়, সপ্তমবারের প্রচেষ্টায়। এই ফাইনাল তাই সত্যিকার অর্থেই ‘লাকি সেভেন’ থাকল।

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে থাকা ১৩জন ক্রিকেটার গতকাল লন্ডন হয়ে লেস্টারে গিয়েছেন। সেখানে বিরতি দিয়ে তিন দিন অনুশীলন করবে বাংলাদেশ দর। এরপর বৃহস্পতিবার লেস্টার ছেড়ে কার্ডিফে পৌছাবে টাইগাররা।

বাংলাদেশের ১৫ সদস্যের স্কোয়াডের মধ্যে নেই কেবল মাশরাফি এবং তামিম। তারা দুজনেই ছোট্ট ছুটিতে আসছে পরিবারের সাথে সময় কাটাতে।

ত্রিদেশীয় সিরিজের পর বিশ্বকাপের আগে বিসিবি ঐচ্ছিক ছুটি প্রদানের ঘোষণা দিয়েছিল। কেউ চাইলে এই ছোট্ট ছুটি নিতে পারবে। সেটাই নিয়েছেন তামিম ও মাশরাফি মর্তুজা।

মাশরাফি দেশে ফিরে আসছেন। তার সাথে আসছেন বিশ্বকাপ স্কোয়াডে না থাকা আরও চার তারকা। তাসকিন, নাঈম হাসান, ইয়াসির আলী ও ফরহাদ রেজা।

অন্যদিকে তামিম ইকবাল যাচ্ছেন দুবাইয়ে। সেখানে তার পরিবার আগে থেকেই অপেক্ষা করছে তার জন্য। এই দুই ক্রিকেটারই আগামী বুধবার লন্ডনে ফিরে যাবেন।

সেই বিশ্বকাপের ১ম ম্যাচেই বাংলাদেশ দল মুখোমুখি হতে যাচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকার। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক যেমন হতে পারে বাংলাদেশ দলের সম্ভাব্য একাদশঃ

১. তামিম ইকবাল ২. লিটন দাস/মেহেদি মিরাজ ৩. সৌম্য সরকার ৪. সাকিব আল হাসান ৫. মুশফিকুর রহীম ৬. মোহাম্মদ মিঠুন ৭. মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৮. সাব্বির রহমান ৯. মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন ৯. মুস্তাফিজুর রহমান ১০. মাশরাফি মর্তুজা ১১. রুবেল হোসেন।