খেলাধুলা

বিশ্বকাপে মাহমুদউল্লাহর ব্যাটিং পজিশন হোক ‘তিন কিংবা চার’

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দলের প্রয়োজনে জ্বলে উঠেন যে কোন পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে দুই সেঞ্চুরি করা একমাত্র ব্যাটসম্যান তিনি। তাকে বলা সাইলেন্ট কিলার। সে কারনেই হয়ত তার এমন পারফরম্যান্সও চোখে পড়েনা কারোই। তারও যে পছন্দের একটি পজিশন থাকতে পারে এটি ভূলেই যান সবাই। তাই না হলে কি গত বিশ্বকাপে তিন বা চারের সেরা মাহমুদউল্লাহ বর্তমানে পাঁচ – ছয়ে ব্যাটিং করেন!

বিশ্বকাপের একাদশ আসর তথা ২০১৫ বিশ্বকাপে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোয়ার্টারফাইনাল খেলেছিল বাংলাদেশ। যেখানে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করেছিলেন অলরাউন্ডার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। চার নম্বর পজিশনে ব্যাটিং করে বিশ্বকাপে প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে তুলে নেন শতক।

পরবর্তীতে কোয়ার্টার ফাইনালে যাওয়ার লড়াইয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয়েও দুর্দান্ত সেঞ্চুরি হাকিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন রিয়াদ। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ৩২২ রান তাড়া করে টাইগারদের জয়েও তিনে ব্যাটিং করে ৬২ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলিছেল রিয়াদ।

অথচ এই মাহমুদউল্লাহ বর্তমানে ব্যাটিং করার সুযোগই পাচ্ছেন না। সদ্য সমাপ্ত ত্রিদেশীয় সিরিজে পাঁচ-ছয়ে ব্যাটিংয়ে নেমেছিলেন রিয়াদ। যেখানে ম্যাচের ৫-১০ ওভার বাকি থাকতে ব্যাটিয়য়ে নামানো হয় তাকে। যা রিয়াদের সাথে বড্ড বেমানান।

তিনে সাকিব, চারে মুশফিক, পাঁচে মিঠুন এবং তারপরই রিয়াদ। অথচ ব্যাটিংয়ে দারুন কিছু করার সক্ষমতা রয়েছে এই অলরাউন্ডারের। সে কারনে বিশ্বকাপে তার ব্যাটিংয়ের উপরও কিছুটা নির্ভর করবে বাংলাদেশ। সেক্ষেত্রে যদি তার পজিশন পরিবর্তন করা না হয় হয়ত সামর্থ্য থাকলেও সঙ্গীর অভাবে ভালো কিছু করতে ব্যর্থ হবেন তিনি।

এসব দিক বিবেচনা করেই বিশ্বকাপে রিয়াদের ব্যাটিং পজিশন তিন কিংবা চারে নিয়ে আসার হয়ত চিন্তা করবে উচিত টিম ম্যানেজমেন্টের। আর সেক্ষেত্রে আস্হার প্রতিদান ভালভাবেই হয়ত আবারো দিবেন সাইলেন্ট কিলার।