খেলাধুলা

আসল খবর ফাঁসঃ মরগ্যানের কারণেই ঢাকা ছেড়ে রংপুরে গেলেন সাকিব

ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে এবার বিপিএলে খেলতে আসবেন ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক ইয়ন ম’রগ্যান। ঢাকার কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন ম’রগ্যানের ঢাকায় খেলার কথা নিশ্চিত করেছেন। সুজন জানিয়েছেন, সব কিছু চূড়ান্ত। ম’রগ্যান ঢাকার হয়েই খেলবেন এবার।

জন্মসূত্রে আইরিশ এই ক্রিকেটার বিপিএল খেলতে আসছেন বিশ্বকাপ বিজয়ী অধিনায়কের তকমা গায়ে এঁটে। এখন বিশ্বকাপ বিজয়ী দলের অধিনায়ককে নেতৃত্ব দেয়াটা ঢাকার ফ্র্যাঞ্চাইজিদের জন্য নৈতিক বাধ্যবাধকতা। ঢাকার ফ্র্যাঞ্চাইজি তথা মালিকরা নিশ্চয়ই ম’রগ্যানকেই দল পরিচালনার নেতৃত্ব দেবেন। খুব স্বাভাবিকভাবেই ধরে নেয়া যায়, ম’রগ্যানই হবেন এবার ঢাকার ক্যাপ্টেন।

ঢাকার ম্যানেজমেন্টের সাথে কথা বলে মোটামুটি সে ধারণাই মিলেছে। তাই ধরেই নেয়া যায় বিশ্বকাপ বিজয়ী দলের অধিনায়ক ম’রগ্যানই এবার বিপিএলে ঢাকার অধিনায়ক। ঢাকার সিইও ওবায়েদ নিজাম ও কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের সঙ্গে কথা বলে মনে হলো, তাদের সম্ভাব্য পরিকল্পনার কথা সাকিবও আগেই জেনে গেছেন।

এখন বাংলাদেশ তথা বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডার হলেও সাকিব নিজেও ধরে নিয়েছেন, বিশ্বকাপ বিজয়ী দলের ক্যাপ্টেনকে বাদ দিয়ে নিশ্চয়ই আমাকে দল পরিচালনার দায়িত্ব দেবেন না ঢাকার ফ্র্যাঞ্চাইজিরা। তাই তিনি ধরে নিয়েছেন, ঢাকায় থেকে গেলেও আমাকে খেলতে হবে ম’রগ্যানের নেতৃত্বে।

এখন ম’রগ্যান যেমন ৫০ ওভারের ফরম্যাটে ইংলিশ দলের অধিনায়ক একইভাবে সাকিব আল হাসানও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে বাংলাদেশের ক্যাপ্টেন। মাঝে গতবার প্রিমিয়ার লিগের আগে টি-টোয়েন্টি লিগ হলেও সব কিছু ধরলে বিপিএলকেই ধ’রা হয় বাংলাদেশে একমাত্র টি-টোয়েন্টি আসর। এখন জাতীয় দলের টি-টোয়েন্টি ক্যাপ্টেন হিসেবে সাকিব নীতিগতভাবে বিপিএলে ক্যাপ্টেন্সি করতে আগ্রহী এবং সেটাই শতভাগ স্বাভাবিক। অবস্থানগত দিক থেকে সাকিব তা চাইতেই পারেন, চাওয়ার কথাও। যেহেতু তিনি বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক, তাই তার বিপিএলের মতো আসরে একটা প্রতিষ্ঠিত দলকে নেতৃত্ব দেয়াটাও জরুরী।

আর সে চিন্তা থেকেই আসলে সাকিব ঢাকা ছেড়ে রংপুরে খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কারণ রংপুরে গেইল, এবি ডি ভিলিয়ার্সের মত অনেক নামীদামি তারকা খেললেও তারা কেউই বিশ্বকাপ বিজয়ী দলের অধিনায়কের তকমা গায়ে মেখে বিপিএল খেলতে আসবেন না। যেটা থাকবে ম’রগ্যানের গায়ে। তাই সাকিবের দল ছাড়ার চিন্তা। আর সে চিন্তা থেকেই ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সাথে সাথে যোগাযোগ ও কথাবার্তা চূড়ান্ত করে রংপুরে যোগ দেয়া।