বিনোদন

শাকিব খানের এক ভক্তও ঘটালো এমন এক কাণ্ড

বিনোদন ডেস্ক: বছর তিনেক আগে ‘নগরবাউল’ খ্যাত তারকা শিল্পী জেমসের জন্মদিনে তাকে শুভেচ্ছা জানিয়ে রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় বিশালাকার বিলবোর্ড প্রদর্শন করে খবরের শিরোনাম হয়েছিলেন প্রিন্স মোহাম্মদ নামের এক জেমস ভক্ত। ভক্তের এমন কাণ্ডে বিস্ময় জানিয়েছিলেন স্বয়ং জেমসও! আর এবার তারকা অভিনেতা শাকিব খানের এক ভক্তও ঘটালো এমন এক কাণ্ড!

ঢাকা থেকে প্রায় ১৬০ কিলোমিটার দূরে হবিগঞ্জ জেলার শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা। সেখানকার সুতাং এলাকার বাছিরগঞ্জ বাজারের বিদ্যুতের পোল ও বিলবোর্ডে ঝুলছে শাকিব খান অভিনীত ‘নাকাব’ ছবির পোস্টার। না, এটা সিনেমার প্রচারণার জন্য কোনো হল কর্তৃপক্ষ করেনি বরং নিজ উদ্যোগে নিজের জমানো টাকায় এই বিলবোর্ডটি টাঙিয়েছেন শাকিবের একজন পাগল ভক্ত!

নায়ক শাকিব খানের ওই অন্ধভক্তের নাম আশরাফুল ইসলাম নাঈম (১৯)। শুক্রবার রাতে শায়েস্তাগঞ্জ থেকে মুঠোফোনে আশরাফুল ইসলাম নাঈম বলেন, বাছিরপুর বাজারে মূল সড়কের পাশে বড় করে তিনটি বিলবোর্ড লাগিয়েছি। প্রিয় নায়ক শাকিব খানকে ভালোবাসি বলেই নিজ থেকেই তার সিনেমার প্রচার চালাচ্ছি। এমনভাবে বিলবোর্ডে ‘নাকাব’-এর পোস্টার টাঙিয়েছি যে মূল সড়ক দিয়ে যাতায়াত করলে যে কারও চোখে পড়বে।

অনেকেই চলতি পথে বিলবোর্ডে ‘নাকাব’ দেখে থেমে যাচ্ছেন। কারণ বিলবোর্ডে সিনেমার পোস্টার এই এলাকায় অতীতে কেউ দেখেনি। অনেকেই আমার এমন কাজ দেখে সিনেমার লোক ভাবছে। কিন্তু তারা জানেনা, আমি ভালোবাসা থেকেই কাজটি করেছি।

শুক্রবার দেশের ১১৩ টি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে শাকিব খান অভিনীত ছবি ‘নাকাব’। মুক্তির চারদিন আগেই অনলাইন থেকে নাকাবের পোস্টার সংগ্রহ করে প্রিন্ট দিয়ে বিলবোর্ড বানিয়েছেন নাঈম। তিনি জানান, সিনেমা হলের লোকজন ছোট ছোট পোস্টার দেয়ালে লাগাচ্ছেন। তাদের আগেই গত সোমবার ওই এলাকায় ‘নাকাব’-এর বিলবোর্ড টাঙিয়েছি।

নাঈম বলেন, আমার বাবা মুদি দোকানদার। তাকে ব্যবসায় সাহায্য করি। হাত খরচের টাকা জমিয়ে বিলবোর্ডে ‘নাকাব’-এর পোস্টার লাগিয়েছি। এতে সহায়তা করেছে আমার দুই বন্ধু।

শুধু ‘নাকাব’-এর পোস্টার বিলবোর্ডে লাগিয়ে থেমে নেই নাঈম, শুক্রবার মুক্তির প্রথম দিনেই মিছিল করতে করতে তিনি ও তার কয়েকজন বন্ধু তিনটা শো দেখেছেন শায়েস্তাগঞ্জের মনিকা সিনেমা হলে৷ ছবি দেখেও তৃপ্তি পেয়েছেন। তার ভাষায়, পরিশ্রম স্বার্থক হয়েছে।

গেল রোজার ঈদে ‘সুপার হিরো’ মুক্তির পর ওই ছবির কুইজ বিজয়ী ভাগ্যবান হিসেবে একটি মোবাইল উপহার পেয়েছিলেন নাঈম। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান হার্টবিট প্রোডাকশন হাউজের উদ্যোগে ওই পুরস্কার নিতে ঢাকা এসেছিলেন নাঈম। সেবারই এফডিসিতে প্রথমবার স্বচক্ষে শাকিব খানকে দেখেছিলেন নাঈম। শুটিংয়ের ফাঁকে নাঈমকে পুরস্কার তুলে দিয়েছিলেন শাকিব খান। সব মিলিয়ে শাকিবের সান্যিধ্যে ছিলেন পাঁচ মিনিট। আর তাতেই শাকিবে মুগ্ধতা নাঈমের।

তার ইচ্ছে, আগামীতে শাকিবের প্রযোজিত ছবি এলে পুরো হবিগঞ্জ জেলা শহরে বিলবোর্ডে দিয়ে ভরে ফেলবেন তিনি!

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy