খেলাধুলা

দ্বিতীয় দিন শেষে ৪৯৭ রানে এগিয়ে বাংলাদেশ দল

মুশফিকর রহিম এর রেকর্ড গড়া ইনিংসের উপর ভর করে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পাহাড় সমান রান দার করল বাংলাদেশ দল। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচে প্রথম ইনিংসে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন মুশফিকুর রহিম। ৪০৭ বলে ১৬ টি চার এবং একটি ছক্কায় সাহায্যে ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন মুশফিক।

এটি মুশফিকুর রহিমের টেস্ট ক্রিকেটে দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি। এর আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২০১৩ সালে বাংলাদেশের হয়ে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করেন মুশফিকুর রহিম। মুশফিকুর রহিমের ২১৯ রানের উপর ভর করে ৫২২ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ।

জবাবে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করছে ১ উইকেটে ২৫ রান করেছে জিম্বাবুয়ে। জিম্বাবুয়ের প্রথম উইকেট তুলে নিলেন তাইজুল ইসলাম।

দ্বিতীয় দিনে আজ ব্যাট করতে নেমে চমৎকার শুরু করেন অপরাজিতা দুই ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। প্রথম সেশন কাটিয়ে দেন এই দুই ব্যাটসম্যান। তবে লাঞ্চ থেকে ফিরেই প্যাভিলিয়নে ফিরে যান মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। দুর্দান্ত খেলতে থাকা এই ব্যাটসম্যানকে আউট করেন কাইল জারভিস।

দলীয় ৩৭২ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৩৬ রান করে উইকেট কিপারের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। মুশফিকুর রহিমকে বেশি সময় দিতে পারেননি আরিফুল হক। ৪ রান করে কাইল জারভিস এর পঞ্চম শিকার হন তিনি। এরপর এই মেহেদী হাসান মিরাজ কে সাথে নিয়ে বড় জুটি গড়ে তোলেন মুশফিকুর রহিম। ৭ উইকেট হারিয়ে ৫২২ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিম ২১৮ এবং মেহেদি হাসান মিরাজ ৬৮ রানে অপরাজিত ছিলেন।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই টপ টপ উইকেট হারাতে থাকে বাংলাদেশ দল। দলীয় ১৩ রানের মাথায় প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ওপেনার ইমরুল কায়েস শূন্য রানেই উইকেটকিপার হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান। ইমরুল কায়েসের উইকেটটি তুলে নেন কাইল জারভিস।

এরপরেই ফিরে যান লিটন দাস। ৯ রান করে কাইল জারভিস বলে আউট হন তিনি। আর অভিষেক ম্যাচেই শূন্য রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন মোহাম্মদ মিঠুন। ২৬ রানে তিন উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়া বাংলাদেশ দলকে টেনে তুলেন মুশফিকুর রহিম এবং মমিনুল হক। ফিফটি পর কিছুটা ওয়ানডে স্টাইলে খেলতে থাকেন এই দুই ব্যাটসম্যান।

১৫০ বলে ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি তুলে নেন মমিনুল। অন্য প্রান্ত থেকে ১৮৬ বলে ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ সেঞ্চুরি তুলে নেন মুশফিকুর রহিম। ১৬১ রান করে অাউট হন মমিনুল হক। এরপরেই অাউট হন তাইজুল ইমলাম।

বাংলাদেশ একাদশ: মাহমুদউল্লাহ, ইমরুল কায়েস, লিটন দাস, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, সৈয়দ খালেদ আহমে

টেস্ট স্কোয়াড: হ্যামিলটন মাসাকাদজা (অধিনায়ক), ব্রায়ান চারি, ক্রেইগ আরভিন, ব্রেন্ডন টেইলর, শন উইলিয়ামস, পিটার মুর, রেজিস চাকাভা, ডোনাল্ড তিরিপানো, কাইল জারভিস, ব্রান্ডন মাভুতা, রিচার্ড এনগারাভা, জন নায়ুম্বু, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, রায়ান বার্ল, টেন্ডাই সাতারা।