খেলাধুলা

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ফুটবল খেলা হবে এবার দেশের আটটি ভেন্যুতে

স্পোর্টস ডেস্ক: বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ফুটবল খেলা হবে এবার দেশের আটটি ভেন্যুতে। জানা গেছে ভেন্যু বাড়ছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ফুটবলে। ৭টি নয়, বিপিএলের একাদশ তম আসর হবে ৮ ভেন্যুতে। লিগের গত আসরে খেলা হয়েছিল মাত্র একটি ভেন্যুতে। তখন অংশ নেয়া ১২টি দলই খেলেছে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে। এবার তা আর হচ্ছেনা। লিগের একাদশ আসরের খেলা গড়াতে আটটি মূল ভেন্যু নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেনশন (বাফফে)।

এছাড়া একটি বিকল্প ভেন্যুও থাকছে। আট ভেন্যুর যে কোন একটিতে সমস্যা হলে বিকল্প ভেন্যুতে খেলা হবে। বাফুফে সুত্র জানিয়েছে, সমস্যা যতই থাকুক নিদেন পক্ষে পাঁচটি ভেন্যুতে খেলা হবেই। নতুন ফুটবল মৌসুমকে সামনে রেখে ২৫ জুলাই শুরু হয়েছে বিপিএলের দলবদল। ২০ অক্টোবর ফেডারেশন কাপ দিয়ে এবারের ঘরোয়া মৌসুম মাঠে গড়ালে ২৩ নভেম্বর শুরু হবে লিগ। কিন্তু শুরুর দিনেই দলবদলের সময় বাড়ানোর দাবী জানায় চার ক্লাব।

যদিও বাকি নয়টি ক্লাবের পক্ষ থেকে এই দাবীর সঙ্গে সম্পৃক্ততার কোন খবর পাওয়া যায়নি। বিপিএলে এর আগে সর্বোচ্চ পাঁচটি ভেন্যুতে খেলা হলেও এবারই সর্বাধিক আটটি ভেন্যু নির্ধারণ হয়েছে। ১৩ ক্লাব এই ভেন্যুগুলোকে ভাগ করে নিয়েছে। আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ ও সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব ময়মনসিংহ স্টেডিয়ামকে এবং ঢাকা আবাহনী লিমিটেড, মোহামেডান স্পোর্টিং ও শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামকে নিজেদের হোম ভেন্যু হিসেবে নিয়েছে।

এছাড়া কমলাপুরস্থ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামকে রহমতগঞ্জ ও ব্রাদার্স ইউনিয়ন, গোপালগঞ্জের শেখ মনি স্টেডিয়ামকে শেখ রাসেল ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র, নীলফামারী স্টেডিয়ামকে বসুন্ধরা কিংস, নোয়াখালী স্টেডিয়ামকে নোফেল স্পোর্টিং ক্লাব, চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামকে চট্টগ্রাম আবাহনী এবং রাজশাহী স্টেডিয়ামকে টিম বিজেএমসি নিজেদের হোম ভেন্যু নির্ধারণ করেছে। বিকল্প ভেন্যু হিসেবে রাখা হয়েছে সিলেট জেলা স্টেডিয়ামকে। বিকল্প ভেন্যু বাদে আটটি স্টেডিয়ামের মধ্যে অন্তত পাঁচটিতে সব সময় খেলা হবে।