বিজ্ঞান-প্রযুক্তি

তাহলে কী পদত্যাগ করবেন মার্ক জাকারবার্গ?

বিশ্বের অন্যতম টেক জায়ান্ট মার্ক জাকারবার্গকে ফেসবুকের সিইও পদ ছাড়তে আহ্বান জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির বিনিয়োগকারীরা। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়, মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমসের গত সপ্তাহের এক প্রতিবেদনের পর ফেসবুকের বিনিয়োগকারীরা জাকাবার্গের ওপর ক্ষুব্ধ হন। এরপরই তার পদত্যাগের দাবি উঠে।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে বলা হয়, ফেসবুক যেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান পার্টির রাজনৈতিক প্রপাগান্ডার মাধ্যম হয়ে পড়েছে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটি অ্যান্টি-সেমেটিক (ইহুদি বিরোধী) কার্যকালাপগুলো আগ্রহের সঙ্গে প্রচার করছে।

২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে রাশিয়ার হয়ে কাজ করার অভিযোগও তোলা হয় নিউ ইয়র্ক টাইমের প্রতিবেদনে।

প্রতিবেদনের পর জাকাবার্গের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ট্রিলিয়াম অ্যাসেট ম্যানেজমেন্টের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি জোনাস ক্রোন। শনিবার তিনি বলেন, ‘এরপর জাকাবার্গের উচিত পদত্যাগ করা।’

ফেসবুকের অপর বিনিয়োগকারী নাতাশা লামব বলেছেন, ‘ফেসবুক তাদের কোম্পানিতে কোনো ধরনের ফিক্সিং সহ্য করবে না। এখনই তার পদত্যাগ করা উচিত।’

তবে মার্ক জাকারর্বাগ তার উপর আনীত অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে বলেছেন, ‘আর্টিকেলটি পড়ার পরই আমি অফিসে ফোন দেই। এবং আটকে দেই।’

প্রসঙ্গত, দিন দিন ফেসবুক ব্যবসায়ে বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে। গতকালও সূচকে তিন শতাংশ নেমেছে। আগের বছরের তুলনায় ২০১৭ সালে ফেসবুকের আয় কমেছে ১২৩ দশমিক ৫৩ মার্কিন ডলার।