খেলাধুলা

বাংলাদেশ দল পাকিস্তান যাবে

স্পোর্টস ডেস্ক: এসিসি ইমার্জিং এশিয়া কাপ এবার যৌথভাবে আয়োজন করবে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা এবং মূলত ভারত পাকিস্তানে দল পাঠাবে না বলেই আগামী ৬ থেকে ১৫ ডিসেম্বর দুই দেশে অনুষ্ঠিত হবে টুর্নামেন্টটি। ‘এ’ গ্রুপের খেলাগুলো অনুষ্ঠিত হবে শ্রীলঙ্কায়।

এই গ্রুপে রয়েছে ভারত, শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান ও ওমান। ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচগুলো আয়োজন করবে পাকিস্তান। বাংলাদেশ ছাড়াও এই গ্রুপের অপর দলগুলো হচ্ছে- পাকিস্তান, হংকং ও আরব আমিরাত। তবে সেমিফাইনাল ও ফাইনাল শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত হবে।

ইমার্জিং এশিয়া কাপে অংশ নিবে বাংলাদেশও। টুর্নামেন্টের গ্রুপপর্বের সব ম্যাচই করাচিতে খেলবে বাংলাদেশ। বিসিবির দল পাঠানোর সিদ্ধান্তে পাকিস্তান যাবে বাংলাদেশ দল । গতকাল সাংবাদিকদের এমনই জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন।

গতকাল তিনি বলেছেন, ‘ইমার্জিং কাপে আমাদের দল অংশগ্রহণ করবে। আমাদের প্রথম রাউন্ডের খেলা পাকিস্তানে আয়োজন করা হয়েছে। ইমার্জিং কাপ মূলত ২টি দেশে হচ্ছে। স্বাগতিক দেশ একটি হচ্ছে পাকিস্তান একটি শ্রীলঙ্কা। আমাদের গ্রুপের প্রথম ম্যাচগুলো পাকিস্তানে পড়েছে। আমরা সেভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছি। আমরা আশা করছি- ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণের জন্য বাংলাদেশ দল পাকিস্তানে যাবে।’

পাকিস্তানে দল পাঠানোর জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নেওয়ার প্রক্রিয়াও শুরু করেছে বিসিবি। এ প্রসঙ্গে নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন বলেছেন, ‘এ ব্যাপারে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের ব্যাপার আছে। আমরা সেদিকেই এগুচ্ছি।’

এর আগে ২০১৫ সালে দুইটি ওয়ানডে ও দুইটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে বাংলাদেশ জাতীয় নারী ক্রিকেট দল পাকিস্তান সফর করেছিল। পিসিবি বারবার অনুরোধ করলেও বাংলাদেশ জাতীয় দলকে পাকিস্তানে পাঠায়নি বিসিবি।

জানা গেছে, আগামী ৪ ডিসেম্বর পাকিস্তান যাবে বাংলাদেশ দল। টুর্নামেন্টের সূচি অনুযায়ী ৬ ডিসেম্বর করাচিতে আরব আমিরাতের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

টুর্নামেন্টে টেস্ট দলগুলোর অনূর্ধ্ব-২৩ দল ও আইসিসি সহযোগী দেশগুলোর জাতীয় দল অংশ নিয়ে থাকে। তবে টেস্ট খেলুড়ে দেশগুলো চার জন সিনিয়র ক্রিকেটার দলে নিতে পারবে। ২০১৭ সালে ইমার্জিং এশিয়া কাপের সর্বশেষ আসর অনুষ্ঠিত হয়েছিল বাংলাদেশে। সেই আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল শ্রীলঙ্কা।