অন্যান

আন্তর্জাতিক টেস্ট ম্যাচ এবং মানহীন ঘরোয়া ক্রিকেটের লীগের পার্থক্য বুঝলেন মোহাম্মদ মিঠুন

এশিয়া কাপে দুর্দান্ত খেলা পুরস্কার হিসেবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজেও সুযোগ পেয়েছিলেন মোহাম্মদ মিঠুন। প্রথম ইনিংসে ‘ডাক’ মারলেও পরের ইনিংসে ব্যাট হাতে দারুণ ভাবে ঘুরে দাঁড়ান তিনি। ৬৭ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেন। পুরস্কার হিসেবে সুযোগ পান ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট ম্যাচে।

কিন্তু প্রথম টেস্টের দুই ইনিংসে বাজে শট খেলে ২০ ও ১৭ রানে আউট হওয়ার পর তার উপলব্ধি, টেস্ট ফরম্যাটে ব্যাটিং করা বেজায় কঠিন। তাছাড়া ঘরোয়া ক্রিকেটের মানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক টেস্ট ক্রিকেটের যোজন যোজন পার্থক্য।

আজ সোমবার মিরপুর শের-ই-বাংলায় সংবাদমাধ্যমকে মিঠুন বলেন, ‘টেস্টে বোলার অনেক মানসম্পন্ন থাকে। তাছাড়া যে কন্ডিশনে খেলা হচ্ছে, এখানে অবশ্যই ব্যাটিংটা কঠিন। আমরা তো ব্যাটিং সহায়ক উইকেটে খেলছি না। ঘরোয়া ক্রিকেটে আমাদের উইকেট নিষ্প্রাণ থাকে, অনেক বেশি আলগা বল পাওয়া যায়, এখানে তুলনায় বোলাররা ভালো। সবকিছু মিলিয়ে ব্যাটিং করাটা অবশ্যই কঠিন। ‘

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টেের দুই ইনিংসেই বাজে শট খেলে আউট হয়েছেন তিনি। দলের বিপর্যয়ের মুহুর্তে অমন শট খেলা নিয়ে আত্মপক্ষ সমর্থন করেন মিঠুন, ‘যদি এমন কন্ডিশন হয়, তাহলে আপনি যে কোনো সময় আউট হয়ে যেতে পারেন।

কারণ বোলারদের অনেক সহায়তা ছিল। বল একেক সময় একেক রকম আচরণ করছিল।  যে কোনো কন্ডিশনে ব্যাটসম্যান রান না করা পর্যন্ত সেট নয়। যখনই সে রান করতে পারবে, তখনই তার কাছে ব্যাটিংটা অনেক স্বাভাবিক হবে। ‘

তবে দলের জন্য নিজের অবদান রাখা উচিত ছিল বলেও মনে করেন তিনি, ‘তারপরও যেভাবেই হোক, যত কঠিনই হোক, ব্যাটসম্যান হিসেবে আমাকে মেনে নিতে হবে এবং ওখান থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। যেটা আশা করেছিলাম সেটা হয়নি। সামনে আরেকটা টেস্ট আছে। সুযোগ হলে ওখানে ভালো করার চেষ্টা করব। ‘

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy