জাতীয় রাজনীতি

বিএনপির শীর্ষ নেতা মিন্টু-আলাল ও সোহেল নির্বাচন করছেন না

বিএনপি নেতা আবদুল আওয়াল মিন্টু, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল ও হাবিব উন নবী খান সোহেল আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন না। আবদুল আউয়াল মিন্টু ফেনী-৩ আসনে নিজে এবং ফেনী-১ আসনে খালেদা জিয়ার বিকল্প প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র কেনেন। মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল চেয়েছিলেন বরিশাল-২ আসন। ঢাকা-৮ আসনের প্রার্থিতা চেয়েছিলেন হাবিবুন নবী খান সোহেল।

বুধবার (২৮ নভেম্বর) শেষ খবর পাওয়া অনুযায়ী বিএনপির এই তিন নেতা এখন পর্যন্ত রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেননি।

বিএনপির একাধিক সূত্র এই তিন নেতার নির্বাচন না করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে হঠাৎ ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন আব্দুল আউয়াল মিন্টু। সরে দাঁড়িয়েছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালও।

এ বিষয়ে আলাল জানান, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নির্বাচনে অংশগ্রহণ অনিশ্চিত ও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রাহমানের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারছেন না সে জন্যই আমি নির্বাচন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

অন্যদিকে, দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় নির্বাচন করতে পারছেন না বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি হাবিব-উন নবী খান সোহেল। অবশ্য বর্তমানে তিনি এখন কারাগারে আছেন। গত ১৮ সেপ্টেম্বর রাজধানীর গুলশান গোলচত্বর থেকে সোহেলকে গ্রেফতার করা হয়।

শীর্ষ দুই নেতার মনোনয়ন বিষয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং কর্মকর্তা শায়রুল কবির বলেন, আবদুল আউয়াল মিন্টু ফেনী-৩ আসনে নিজে এবং ফেনী-১ আসনে খালেদা জিয়ার বিকল্প প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র কেনেন।

তিনি আরও বলেন, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল চেয়েছিলেন বরিশাল-২ আসন। ঢাকা-৮ আসনের প্রার্থিতা চেয়েছিলেন হাবিবুন নবী খান সোহেল। তিনজনের কেউই রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেননি।

উল্লেখ্য, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী বুধবার ছিল মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন।