জাতীয়

আবরার ইস্যুতে বঙ্গবন্ধু ও ছাত্রলীগ নিয়ে কটুক্তি, যুবক গ্রেপ্তার

বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অশালীন বক্তব্য এবং স্ট্যাটাস দেওয়ায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় মামুন ভূঁইয়া ওরফে মারজান (২০) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার রাতে টুঙ্গিপাড়া উপজেলার গহরডাঙ্গা গ্রাম থেকে ওই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত মামুন ভূঁইয়া ওরফে মারজান টুঙ্গিপাড়া উপজেলার গহরডাঙ্গা গ্রামের আইয়ুব আলী ভূঁইয়ার ছেলে।

এর আগে শুক্রবার রাতে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রেজাউল বিশ্বাস বাদী হয়ে দুইজনকে আসামি করে টুঙ্গিপাড়া থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রেক্ষিতে মামুন ভূঁইয়া ওরফে মারজান ও জাহিদ শেখ নামের দুই যুবক নিজ নিজ ফেসবুক আইডিতে লাইভে এসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগকে নিয়ে অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করে। এতে বঙ্গবন্ধু, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের সম্মানহানি হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন।

এ অভিযোগ পাওয়ার পর পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত মামুন ভূঁইয়া ওরফে মারজানকে গহরডাঙ্গা গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করে।

মামলার বাদী টুঙ্গিপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রেজাউল বিশ্বাস বলেন, বিবাদীদ্বয় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সংগঠনের প্রাতিষ্ঠানিক সুনাম ক্ষুণ্ণ করার লক্ষ্যে অশ্লীল, অশালীন, প্রোপাগান্ডামূলক কু-রুচিপূর্ণ লেখনী, শব্দাবলীযুক্ত একাধিক ফেসবুক পোস্টের মানহানিকর তথ্য প্রকাশ ও প্রচার করেছে। যা সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বলে আমার মনে হওয়ায় আমি বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেছি।

টুঙ্গিপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কে.এম এনামুল কবীর বলেন, এ ঘটনায় মামুন ভূঁইয়া ওরফে মারজান নামে এক যুবককে আটক করা হয়েছে। বাকী আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। এছাড়া বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy